ইউটিউবের নতুন নিয়ম কানুন ২০২২ – ইউটিউব কপিরাইট নিয়ম (আপডেট)

5/5 - (1 vote)

আপনি যদি ইউটিউবে চ্যানেল বানিয়ে টাকা ইনকামের কথা ভেবে থাকেন, তাহলে আপনার ইউটিউবের নিয়ম কানুন ভালোভাবে জানা খুবই জরুরী।

ইউটিউব এর নিয়ম কানুন জানা ছাড়া আপনি কোন ভাবে একটি ইউটিউব চ্যানেল কে সঠিকভাবে পরিচালনা করতে পারবেন না।

হয়তোবা সবকিছু ঠিকঠাক থাকা সত্ত্বেও ইউটিউব এর কোন একটি নিয়ম ভঙ্গ করার জন্য আপনার চ্যানেলটি আজীবনের জন্য ইউটিউব থেকে ডিলিট হয়ে যেতে পারে।

তাই একজন সফল ইউটিউবারের হতে চাইলে ইউটিউব নতুন আপডেট এর জন্য কান খাড়া রাখতে হবে।

আজকে আমাদের এই পোস্টে আমরা “ইউটিউবে নতুন নিয়ম কানুন”, ” ইউটিউব কপিরাইট আইন (Copyright Rules)”, ” YouTube মনিটাইজেশন এর শর্ত (YouTube Monetization Rules)”, “YouTube পলিসি” এর ব্যাপারে বিস্তারিত জানব।

ইউটিউবের নতুন নিয়ম কানুন ২০২১
ইউটিউবের নতুন নিয়ম কানুন ২০২২

কেন ইউটিউবের আইন বা নিয়ম মানতে হবে?

ইউটিউব তাদের ভিডিও প্রকাশকদের জন্য কিছু নির্দিষ্ট নীতিমালা দিয়ে দিয়েছে, যা অবশ্যই মেনে তাদের ইউটিউব চ্যানেল পরিচালনা করতে হবে।

ইউটিউব এর সফলতা পেতে চাইলে বা ইউটিউব দ্বারা ভালো কিছু করতে চাইলে, ইউটিউব এর নিয়ম নীতি ভালো করে মেনে তবেই ইউটিউব এ কাজ করতে হবে। তা না হলে ইউটিউব থেকে আপনার দ্বারা ভালো কিছু অর্জন করা সম্ভব হবে না।

ইউটিউবের নিয়ম কানুন ২০২২ (YouTube Rules 2022)

বর্তমান সময়ে ইউটিউবের নিয়ম কানুন যতটা কঠিন আগে কিন্তু ততটা কঠিন ছিল না! ইউটিউবে ভিডিও প্রকাশকরা কোন নিয়ম নীতির তোয়াক্কা না করে ইউটিউবে ভিডিও আপলোড করার কারণে ও ইউটিউব সম্পর্কিত অন্যান্য নীতিমালা ভঙ্গ করার কারণেই ইউটিউব এতটা কঠিক হতে বাধ্য হয়েছে।

এতে আমরা YouTube-এ ভালোমানের ভিডিও পাওয়ার পাশাপাশি প্রকৃত মেধা সম্মৃদ্ধ ব্যক্তিদের ইউটিউবে তাদের মেধাকে ব্যবহার করে ভালো কিছু করার সুযোগ তৈরি হয়েছে। ইউটিউব এর এই নিয়ম-নীতিগুলো ইউটিউব এর দর্শক ও ভিডিও প্রকাশক উভয়েরই লাভ হয়েছে।

অবশ্যই দেখবেন: 

# অন্যের ভিডিও, অডিও, ছবি ব্যবহার করবেন না

আপনি অবশ্যই একটি ভিডিও থেকে ধারণা নিতে পারবেন। কিন্তু কোনমতেই সেই ভিডিওতে ব্যবহার করা কোন ভিডিও, অডিও, বা ছবি আপনি আপনার ভিডিওতে ব্যবহার করতে পারবেন না।

অন্যের ভিডিও অডিও ছবি আপনার ইউটিউব চ্যানেলের ব্যবহার করলে আপনার ইউটিউব চ্যানেল টি কপিরাইট স্ট্রাইক (Copywright Strike) এর আওতায় পড়ে যেতে পারে।

আপনি যার ভিডিও অডিও বা ছবি কপি করবেন সে চাইলে আপনাকে কপিরাইট স্ট্রাইক দিতে পারবে তার ইউটিউব চ্যানেল থেকে। এটিই হল কপিরাইট ( Copywright Strike)। আপনার ইউটিউব চ্যানেলের যদি একে একে একসাথে তিনটি কপিরাইট স্টাইক এসে যায় তাহলে আপনার ইউটিউব চ্যানেলটি ইউটিউব থেকে ডিলিট হয়ে যাবে সারা জীবনের জন্য। এটাই হল YouTube এর কপিরাইট পলিসি।

আপনার জন্য: ইউটিউব এসইও: YouTube ভিডিও #1 এ নিয়ে আসুন

কপিরাইট ফ্রি ভিডিও 

আমি আগেই বলেছি, আপনি চাইলেই যেকোন ভিডিও ক্লিপ আপনার ভিডিওতে ব্যবহার করতে পারবেন না। আপনি যে ভিডিওটি ইউটিউবে আপলোড করবেন সেটি প্রকৃত মালিক আপনাকে হতে হবে। তা না হলে যে কোন সময় আপনি যে ভিডিওটি আপনার ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করবেন সেই ভিডিওর মালিক আপনাকে কপিরাইট স্টাইক দিতে পারে। তাই মনোনিবেশ করতে হবে সব সময় নিজের ভিডিও ইউটিউবে আপলোড করার।

তবে অনলাইনে কিছু ওয়েবসাইট রয়েছে যেখান থেকে আপনি ভিডিও ক্লিপ আপনার ইউটিউব ভিডিওতে ব্যবহার করতে পারবেন। ওই ওয়েবসাইটগুলি তাদের ভিডিও ইউটিউবে সবাইকে ব্যবহার করার জন্য উন্মুক্ত করে দিয়েছে।

তাই সে সকল ওয়েবসাইট থেকে ভিডিও ক্লিপ ডাউনলোড করে আপনার ইউটিউব চ্যানেলের ব্যবহার করলে তারা কোন কপিরাইট স্ট্রাইক আপনাকে দেবে না।

এরকম কয়েকটি জনপ্রিয় কপিরাইট ফ্রি ভিডিও ক্লিপ ডাউনলোড ওয়েবসাইট হচ্ছে:

কপিরাইট ফ্রি মিউজিক (Audio)

আপনি যেমন অন্যের ভিডিও ক্লিপ আপনার ভিডিওতে ব্যবহার করতে পারবেন না ঠিক তেমনি অন্যের অডিও বা মিউজিক ও আপনার ভিডিওতে ব্যবহার করতে পারবেন না।

আপনি যদি ইউটিউবে কপিরাইট ফ্রি মিউজিক এর নিয়ম তোয়াক্কা না করেন তাহলে হয়তোবা কোন এক সময় গিয়ে  অডিও মিউজিক এর কারনে আপনার ইউটিউব চ্যানেলে স্টাইক এসে যেতে পারে।

ইউটিউব আপনার ভিডিওতে মিউজিক ব্যবহারের ক্ষেত্রে খুবই সতর্কতার সাথে ব্যবহার করতে হবে। তবে আপনি ইউটিউব অডিও লাইব্রেরি থেকেই কপিরাইট ফ্রি মিউজিক আপনার ইউটিউব চ্যানেলের ভিডিও তে ব্যবহার করতে পারবেন। ইউটিউব লাইব্রেরীতে (YouTube Audio Libary) শুধুমাত্র ইউটিউবারদের জন্য “Copywright Free Music”  ইউটিউব কর্তৃপক্ষ দিয়ে দিয়েছে। যাতে ইউটিউব এরা খুব সহজে মিউজিক ভিডিও তাদের ভিডিওতে ব্যবহার করতে পারেন কোন প্রকার সমস্যা ছাড়া।

তাছাড়াও আপনি অনলাইনে কিছু ওয়েবসাইট রয়েছে সেখান থেকেও আপনি খুব সহজেই কপিরাইট ফ্রি অডিও মিউজিক ডাউলোড করে আপনার ভিডিওতে ব্যবহার করতে পারবেন, এতে আপনার ইউটিউব চ্যানেলে কোন সম্যসা হবে না। কেননা সেই ওয়েবসাইটগুলো ইউটিউবারদের জন্য কপিরাইট ফ্রি ইউটিউব অডিও তাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করেছে।

এমন কয়েকটি ওয়েবসাইট হচ্ছে:

কঁপিরাইট ফ্রী ছবি (Picture)

ইউটিউব ভিডিও প্রকাশকদের জন্য তাদের ভিডিওতে ছবি ব্যবহার ক্ষেত্রে একই নিয়ম প্রযোজ্য যেরকম ভিডিও অডিও ক্ষেত্রে। ছবি ব্যবহারের ক্ষেত্রেও আপনাকে সতর্ক হতে হবে আপনার ইউটিউব ভিডিওতে ব্যবহারকৃত ছবির যেন প্রকৃত মালিক আপনি হন।

আর তা না হলে ইউটিউব ভিডিও এর অডিও-ভিডিও ব্যবহারের নিয়ম অনুযায়ী আপনি আপনার ইউটিউব ভিডিওতে অন্যের ছবি ব্যবহার করার জন্য কপিরাইট স্ট্রাইক পেয়ে যেতে পারেন।

তবে অনলাইনে অনেক ওয়েবসাইট রয়েছে কঁপিরাইট ফ্রী ইমেজ ডাউনলোড করার। সেই সকল ওয়েবসাইট ভিজিট করে আপনি খুব সহজে আপনার ইউটিউব ভিডিওর জন্য কপিরাইট ফ্রি ডাউনলোড করে ব্যবহার করতে পারবেন।

আর সরাসরি আপনি গুগল থেকে ছবি অনুসন্ধান করে “Creative Commons licenses” এ ক্লিক করে কপিরাইট ফ্রি ছবি ডাউনলোড করে ব্যবহার করতে পারবেন।

# অশ্লীল ভিডিও বা ছবি ব্যবহার করবেন না

YouTube পর্নোগ্রাফি বা অ্যাডাল্ট কন্টেন্টের জন্য নয়। আপনার ভিডিওতে যদি এই ধরনের কোন কিছু থাকে, তাহলে ভিডিওটি আপনার নিজের হওয়া সত্বেও আপনি সেটি ইউটিউবে আপলোড করতে পারবেন না। তাহলে আপনার ভিডিওটি Nudity & sexual content policies আওতায় পড়ে যাবে।

এই প্রসঙ্গে মনে রাখবেন যে ইউটিউব আইন প্রয়োগকারীদের সাথে যথাসম্ভব সহায়তা করে এবং শিশুদের শোষণের ঘটনা দেখতে পেলে অভিযোগ জানাই।

# অসম্পর্কিত ভিডিও টাইটেল বা ছবি ব্যবহার করবেন না

ইউটিউবে অসম্পর্কিত ভিডিও টাইটেল বা ছবি ব্যবহার স্প্যাম এর আওতায় পড়ে। এ বিষয়ে আপনাকে সতর্ক থাকতে হবে ইউটিউবে বেশি ভিউ পাওয়ার জন্য আজেবাজে শব্দ ভিডিও টাইটেল ভিডিও ডিসক্রিপশনে ব্যবহার করা যাবে না।

অসম্পর্কিত ভিডিও টাইটেল বলতে বুঝায় আপনার ভিডিও হচ্ছে এক বিষয়ের কিন্তু আপনি টাইটেল লিখলেন অন্য বিষয়ে, মানে যেটি আপনার ভিডিওর সাথে যায় না।

# হ্যাকিং সম্পর্কিত ভিডিও বানাবেন না

হ্যাকিং সম্পর্কিত যেকোনো ভিডিও আপনি ইউটিউবে আপলোড করতে পারবেন না। যদিও সেটির প্রকৃত মালিক আপনি হন। তাই আপনার যদি ইচ্ছা থাকে হ্যাকিং সম্পর্কিত ইউটিউব ভিডিও তৈরি করা তাহলে আজকেই সেই টপিক চেঞ্জ করে অন্য কোন টপিক নির্বাচন করুন ইউটিউবিং করার জন্য।

# সোশ্যাল মিডিয়াতে অতিরিক্ত শেয়ার করবেন না

অতিরিক্ত কোন জিনিস ভালো না সেটা আমরা সবাই জানি। ইউটিউব ভিডিও ক্ষেত্রেও সেই একই কথা প্রযোজ্য। আপনার ইউটিউব ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়াতে অতিরিক্ত শেয়ার করার কারণে আপনার ইউটিউব মনিটাইজেশন ডিজেবল হয়ে যেতে পারে।

কারণ গুগোল সবসময় চায় কোয়ালিটি ভিজিটর বা ট্রাফিক। ইউটিউব ভিডিও কোয়ালিটি ট্রাফিক বলতে বোঝায় ইউটিউবে আপনার টপিক এর বিষয়ে যারা সার্চ করতেছে সেসকল ভিজিটরকে।

এখন আপনি যদি ফেসবুক, টুইটার, ইনস্টাগ্রামসহ বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করেন তারা তো আপনার কোয়ালিটি ট্রাফিক হবে না। আর যদিও হয় তবে সেটা অনেক কম। সেজন্য ইউটিউব অতিরিক্ত সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার পছন্দ করেনা।

ইউটিউব মনিটাইজেশন নীতিমালা ২০২২

আপনার ইউটিউব চ্যানেল থেকে টাকা আয় করার জন্য আপনার ইউটিউব চ্যানেলের মনিটাইজেশন পেতে হবে। ইউটিউব মনিটাইজেশন পাওয়ার জন্য ইউটিউব মনিটাইজেশন এপ্লিকেশন এর নতুন কন্ডিশন পূরণ করতে হবে।

২০১৮ সালের পূর্বে ইউটিউবে মনিটাইজেশন পাওয়া অনেক সহজ ছিল বর্তমান সময়ের চেয়ে। কেননা সেই সময় একটা ইউটিউব চ্যানেলের সর্বমোট ১০,০০০ ভিও হলে ওই চ্যানেল থেকে ইউটিউব মনিটাইজেশন এর জন্য আবেদন করা যেত।

কিন্তু বর্তমান সময়ে একটি ইউটিউব চ্যানেলের এডস্নেস মানে মনিটাইজেশন পাওয়ার জন্য অনেক শর্ত পূরণ করতে হয়। যা আমি মনে করি একজন ইউটিউবার অনেক ধৈর্য্য ও শ্রমের মাধ্যমে অর্জন করা সম্ভব।

শর্তগুলো হচ্ছে:

  • আপনার ইউটিউব ভিডিওয়ের সর্ব মোট দেখার পরিমান ৪,০০০ ঘন্টা হতে হবে। অর্থাৎ আপনার ইউটিউব ভিডিও যখন ইউটিউব দর্শকরা ৪,০০০ ঘন্টা দেখবে ( 4,000 hours watch time ) আপনার ইউটিউব এনালাইটিক্স এর হিসাব অনুযায়ী গত এক বছরে তখন আপনি ইউটিউব মনিটাইজেশন এর জন্য আবেদন করতে পারেন।
  •  ১,০০০ সাবস্ক্রাইবার অর্জন করতে হবে শেষ এক বছরের ভিতর।
  • ইউটিউব এর সকল অফিশিয়াল নিয়ম নীতি অনুযায়ী ঠিক থাকতে হবে।

ইউটিউব চ্যানেল Verification Badge এর নিয়ম

ইউটিউব চ্যানেল “Verification Badge” এর কারণে একটি ইউটিউব চ্যানেলকে অনেক বেশি ট্রাস্ট এর ভ্যালু তৈরি করে ভিওয়ারদের কাছে।

ইউটিউব চ্যানেল “Verification Badge” হচ্ছে আপনি যখন “Verification Badge” আলা ইউটিউব চ্যানেলে ভিজিট করবেন তখন আপনি দেখতে পাবেন ইউটিউব চ্যানেলের নামের উপরে একটি টিকমার্ক রয়েছে। ওই টিকমার্ক টি হল “YouTube Channel Verification Badge”।

ইউটিউব চ্যানেল “Verification Badge” পেতে হলে কিছু শর্ত পূরণ করতে হবে।

  • ইউটিউব চ্যানেল “Verification Badge” এর জন্য আবেদন করতে হলে আপনার ইউটিউব চ্যানেলের কমপক্ষে ১ লক্ষ সাবস্ক্রাইবার করতে হবে। তা না হলে আপনি “YouTube Channel Verification Badge” আবেদন করতে পারবেন না।
  • ইউটিউব চ্যানেলের কভার ফটো থাকতে হবে।
  • ইউটিউব চ্যানেল লোগো থাকতে হবে।
  • ইউটিউব চ্যানেলে কোনরকম কমিউনিটি গাইডলাইন স্ট্রাইক বা কপিরাইট স্টাইক থাকা যাবে না।

YouTube নিয়ম কানুন FAQ

#কপিরাইট ক্লেইম কি?

কপিরাইট ক্লেইম হচ্ছে “ইউটিউব কপিরাইট স্ট্রাইক” এর মত। তবে সব চ্যানেলে কিন্তু কপিরাইট ক্লেইম দিতে পারেনা। কারন ইউটিউবে যে সকল চ্যানেল গুলির কনটেন্ট আইডি রয়েছে শুধু সেই সকল ইউটিউব চ্যানেল গুলো কপিরাইট ক্লেইম অন্য ইউটিউব চ্যানেলকে দিতে পারে।

সর্বশেষ,

আশাকরি আমাদের আজকের অনলাইন ইনকাম বিডি এর পোস্টটি যারা ইউটিউবে ক্যারিয়ার গড়তে চান তাদের জন্য অনেক হেল্পফুল হবে।

আর আপনার যদি “ইউটিউব নিয়ম কানুন” সম্পর্কে কোন প্রশ্ন থাকে তাহলে নিচে কমেন্ট বক্সে আপনার প্রশ্নটিই করে যাবেন। আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করবো আপনার সমস্যা বা প্রশ্নের সমাধান করার জন্য।

আমাদের কামনা শুভ হোক আপনার ইউটিউব পথ চলা।

আর পোস্ট আপনার জন্য:

63 thoughts on “ইউটিউবের নতুন নিয়ম কানুন ২০২২ – ইউটিউব কপিরাইট নিয়ম (আপডেট)”

  1. Md. Biplob Hossain

    ভাইয়া খুবই ভালো হয়েছে লেখাটা খুবই চমৎকার হয়েছে বুঝতে কোন অসুবিধা হয়নি ধন্যবাদ আপনি এভাবে আরও তথ্য প্রদান করেন।

      1. আমার ইউটিউব চ্যানেল নেই আর আমি সেটা খুলতেও চাইনা এখন আমার ক্ষেএে কি ইউটিউবের শতগুলো মেনে চলতে হবে?
        কারন আমি অন্যের ইউটিউব চ্যানেল থেকে তার অনুমতি নিয়েই ভিডিও অডিও এডিট করতে চাইছি।
        আমি যদি অন্যান্য মাধমে তৈরি করা ভিডিও শেয়ার করি যেমনঃপেজ,গ্রুপ,মেসেঞ্জারে তাহলে সেটা অন্যায় হবে?

    1. MD:Amran Hossain

      আমার ইউটিউব চ্যানেলে গতরাত একটি ভিডিও ছেড়েছি এখন ভিডিওটা আমার চ্যানেলে দেখা যায় না।

      1. MD:Amran Hossain, আপনার ভিডিওটি দেখুন সম্পূর্ণ আপলোড হয়েছে কিনা, আর নইলে আমার মনে হয় আপনি কোন ইউটিউব এর নিয়ম ভঙ্গ করেছেন। ভিডিও টা কি আপনার নিজের তৈরি ছিল?

        1. Md tasbir evan

          আমার চেনেল এর কী সমস্যা,আগের মতন ভিউজ আসে না যে?? আর আমার ভিডিও আমার চেনেল থেকে আমি দেখলে কী সমস্যা হবে??
          দয়া করে জানাবেন।

          1. একটি ইউটিউব চ্যানেলের সব সময় একই রকম ভিউস আসেনা। তবে কোয়ালিটি ভিডিও ছাড়তে পারলে আস্তে আস্তে চ্যানেলের ভিউ এর হার বাড়তে থাকে। নিজের ভিডিও নিজেই দেখলে
            সাধারনত কোন সমস্যা হয় না। কিন্তু দেখে লাভ কি?

    2. Harunur Rashid

      মনিটাইজেশন এর কলামের লেখা” ইউটিউব এর সকল অফিশিয়াল নিয়ম নীতি অনুযায়ী ঠিক থাকতে হবে”
      এটির বিস্তারিত বলুন প্লিজ।
      সবগুলোই ভালোই লিখেছেন।

    3. ভাইয়া বাড়িতে রেকর্ড করা গান, হারমোনিয়াম এবং তবলার সাথে ভাবে যেগুলো করা হচ্ছে,এই গানের ভিতর কিছু জায়গায় কপিরাইট ক্লেইম আসতেছে , অথচ আমরা কোন বাইরের মিউজিক কপি করিনি,, ক্রোম এর ভিতরে দেখলে দেখা যাচ্ছে “video uses this songs melody content found during 2:40-3:40minutes “এই লেখাটা আসছে, এখন বাসায় রেকর্ডিং করা গানের ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক তো আর চেঞ্জ করা যায় না,, তাহলে কি করব??

    1. সুমন, ইউটিউব কনটেন্ট আইডি হচ্ছে একটি ইউটিউব ভিডিও এর পরিচিতি। ইউটিউব কনটেন্ট আইডি এর ভিডিওগুলি ইউটিউব আলাদা ডাটাবেজে রাখে। ইউটিউব কনটেন্ট আইডির ভিডিও কেউ আপলোড করলে অটোমেটিক ইউটিউব তাকেও ও প্রকৃত মালিককেও (কনটেন্ট আইডি ধারীকে) নোটিশ করে জানিয়ে দেই। আমরা পরবর্তীতে এ বিষয় নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব ইনশাল্লাহ।

  2. md Shahjahan miah

    ভাইয়া
    আমি কি আমার ইউটিউব চ্যানেলের লম্বা একটা ভিডিও থেকে, ৫০ থেকে ৫৯ সেকেন্ড এর ভিডিও কেটে কয়েকটি ভিডিও বানিয়ে আপলোড করতে পারব।

      1. bhaiya amr channel ta monetization howar pothei ase,,kintu 2din agei amr channel a copyright strike esheche😥
        Ekhn ki amr channel a monetization on hobe na?? Kindly ektu janaben

        1. Mim, কপিরাইট স্ট্রাইক থাকলে হবে না। কপিরাইট স্টাইক উঠার পর মনিটাইজেশন এর জন্য আবেদন করুন।

          1. একটা কপিরাইট স্ট্রাইক এর মেয়াদ কত দিন থাকে ?? Plz জানাবেন 🙏🙏🙏

  3. আমার ইউটিউব চ্যানেলটি ২০১৭ সালে খোলা। কিন্তু তখন মাত্র একটি ভিডিও আপলোড করেছিলাম।
    এখন আমি সেই চ্যানেলটি কন্টিনিউ করছি। ২০২১ এ যদি আমি ইউটিউবের মনিটাইজেশন চাহিদা পূরণ করতে পারি মানে ১ বছরে ১,০০০ সাবস্ক্রাইবার ও ৪,০০০ঘণ্টা ভিউ তাহলে কি আমি মনিটাইজেশন পাব ? নাকি খোলার ১ বছরের মধ্যেই সেটি পূরণ করতে হবে ?
    জানাবেন প্লীজ

    1. Rofiqul Islam, গত এক বছরের মধ্যে ১,০০০ সাবস্ক্রাইবার ও ৪,০০০ঘণ্টা ভিউ হলে মনিটাইজেশন পাবেন। যদি অন্যান্য বিষয় আপনার ঠিক থাকে,ইউটিউবের নিয়ম অনুযায়ী।

    2. Rituka Sen bakshi

      আমি শট ভিডিও করি , যারা অন্যের শট থেকে সাউন নিয়ে শট ভিডিও করে কি করে আমি বুঝতে পারছি না 🥺 বললে খুব হ্যাল্প হতো। অনেক ভিডিও মিউট হয়ে যাচ্ছে আমার

  4. আমি যদি অন্য চ্যানেলের ভিডিও নিজের youtube চ্যানেলে যে চ্যানেল এই ভিডিওর মালিক তার নাম উল্লেখ করে দিই তবে কী copywright strike হবে?

    1. Abdul Mutaleb, ভিডিও এর মালিক যদি “কপিরাইট স্টাইক” দেই তাহলে আপনার চ্যানেলে “কপিরাইট স্টাইক” আসবে।

      1. ভাই যদি আমি pixels.com এখান থেকে ভিডিও ডাউনলোড করে হুবহু আমার ইউটিউব চ্যানেল এ আপলোড করি তাহলে কোনো সমস্যা হবে ?? আর ভিডিওর শুরুতে এবং শেষে কিছু PNG সাইজের ফটো দিয়ে শুরু করি ভিডিও এবং চ্যানেল সাবসক্রাইব করার জন্য কিছু টাইটেল পিএনজি ফটো আ্যাড করি তাহলে হবে কি? আমার যার ওয়েব সাইট থেকে ভিডিওডাউনলোড করেছি সে ওয়েবসাইটএর মালিক কপিরাইট স্টাইক করে তাহলে সমস্যা হবে কি?আর তারা তো সেটা করবে না। কিন্তু যারা আমার আগে ওই ওয়েবসাইট থেকে ভিডিও ডাউনলোড করে আপলোড করেছে তখন যদি তারা দেখে আমি ওনার ভিডিও কপি করেছি এবং অভিযোগ দেয় তাহলে আমার ইউটিউব চ্যানেলি নস্ট হবে কি?ভাই এই বিষয়ে জানালে খুশি হতাম।

  5. আমালর ইউটিউব চ্যানেল একটা ভিডিও আপলোড করার পর মনে করেন এই ভিডিও থেকে ১০০ঘন্টা ওয়াশ টাইম ১০০০ভিউজ ১০০ও সাবস্ক্রাইব পেলাম। এখন যদি উক্ত ভিডিওটি যদি আমি ডিলেট করে দিই তাহলে আমার ১০০ ঘন্টা ওয়াশ টাইম ১০০০ভিউজও ১০০সাব্স্কাইব গুলো কি থাকবে নাকি চলে যাবে। আশা করি উত্তর দিবেন

      1. আলহামদূলিল্লাহ অনেক চমত্কার উদাহরণ দিয়ে বুঝিয়ে দিয়েছেন

  6. ভাইয়া আপনার কথাগুলো খুব ভালোভাবে বুঝতে পেরেছি।
    আমার একটা নাম্বার দিয়ে আগে দুইটা জিমেইল অ্যাকাউন্ট খোলা হয়েছে। এই দুইটা জিমেইল অ্যাকাউন্ট ডিলিট করে একই নাম্বার দিয়ে নতুন জিমেইল অ্যাকাউন্ট খুলে ইউটিউব চ্যানেল ক্রিয়েট করলে কি মনিটাইজেসন পেতে অসুবিধা হবে?

  7. আমি যদি ইউটিউব চ্যানেলে বলে দেই যে,এখানে শুধু FOOTBALL NEWS+ANIME+GAMING এ ৩ ধরনের ভিডিও শুধু দিব।এ ৩টা ক্যাটাগরির বাইরে আর কিছু দিবনা তাহলে কী মনিটাইজেশন হবে?আর আমি যদি ANIME এর রিভিউ দেওয়ার সময় ঐ ANIME এর কিছু দৃশ্য ব্যবহার করি,তাহলে কী কপিরাইট হবে?

    1. MAHIR, মনিটাইজেশন দিবে। আপনাকে ANIME এর রিভিউ দেওয়ার সময় ঐ ANIME এর কিছু দৃশ্য ইডিট করি ব্যবহার করতে হবে।

      1. ভাইয়া আমি ভিডিও বানাই
        কিন্তু আমার মুখ দেখাই না স্ক্রীন রেকর্ড করে বানাই
        এ ক্ষেত্রে কি monitazation পাবো

  8. ভাইয়া, একটি মোবাইল দিয়ে কি ৩-৪ টি ইউটিউব চ্যানেল খোলা যাবে ? এবং প্রতিটি চ্যানেল ইউটিউব নিয়ম মেনে চললে কি মনিটাইজেশন পাওয়া যাবে ? দয়া করে জানাবেন।

  9. ভাইয়া, আমার এক্টা ভিডিও ইউটিউব ডিলিট করে দিয়েছে। ইউটিউবের মতে সেই ভিডিও তে গাইডলাইন মানা হয়নি। এখন আমার প্রশ্ন হলো আমি কি এ অবস্থায় মনিটাইজেশন পাবো?? এপ্লিকেশন করার আগে যদি আমি কিছু ভিডিও ডিলিট করে দেই তাহলে কি মনিটাইজেশনে সমস্যা হবে?? কাইন্ডলি জানাবেন

    1. Nipa, আমি নিশ্চিতভাবে কিছু বলতে পারছিনা। তবে মনে হচ্ছে না মনিটাইজেশন পেতে সম্যসা হবে।

  10. ভাই অন্যের ভিডিও আমার চ্যালেনে আপলোড দিলে কী হবে যদি কপিরাইট ক্লেইম না আসে। তাহলে কী সম্যা হবে? আশাকরি জানাবেন ভাই

    1. কপিরাইট ক্লেইম না আসলে কোন সমস্যা হবে না। কিন্তু অন্যের ভিডিও নিয়ে কাজ করা ঠিক না। নিজে কিছু করার চেষ্টা করুন। তাহলে ভবিষ্যতে কোনো বিপদের সম্মুখীন হবেন না।

  11. আমি পশু পাখি নিয়ে বিডিও তৈরি করতে চাচ্ছি এটা করলে কি মনিটাইজ পাবো?

  12. যদি আমার চ্যানেলের কোনো একটি ভিডিওতে কপিরাইট ক্লেইম থাকে তাহলে কি আমি মনিটাইজেশন পাব না??

  13. ভাই আমার চ্যানেলে আমি প্রথমআলো সহ বিভিন্ন পত্রিকা থেকে শিক্ষা মূলক অনেক কিছু স্ক্রিন রেকর্ড করে নিজের ভয়েস দিয়ে বিশ্লেষণ করে আপ দেই.. এতে সমস্যা আছে কি প্লিজ জানাবেন।

  14. শরীর চর্চা এবং মেডিকেল টিপস নিয়ে দুই টি চ্যানেল আছে কিন্তু নতুন নিয়ম অনুযায়ী আমার ভিডিওতে এডভেটাস আসে না আমি কি ভবিষ্যতে মনিটাইজ পেতে পারি

    1. Maisha Mim, যদি আপনার চ্যানেলে এড না আসে তাহলে ভবিষ্যতে মনিটাইজেশন পাওয়ারএড আসার সম্ভবনা কম। তবে আপনি আপনার ইউটিউব চ্যানেলের ভুলগুলো শুধরে নিলে ইউটিউব মনিটাইজেশন পাবেন।

  15. ভাইয়া আমার এক বন্ধু নিউজ চ্যানেল খুলেছে, ভিডিও ফুটেজ গুলো ফেসবুক থেকে সংগ্রহ করে। ওর চ্যানেলে তো লাখ লাখ ভিউ আসে। আর অনেক টাকা ইনকাম করে।
    তাহলে ওই চ্যানেলের ভিডিও তে কোন কপিরাইট ক্লেইম/ স্টাইক আসে না কেন?
    আশা করি আপনি আমার প্রশ্নের উত্তর দিবেন?

    1. Rubel Hossain, আপনার বন্ধুর মনে হয় কপিরাইট ফ্রি ইমেজ ব্যবহার করে। এর জন্য কোন কপিরাইট ক্লেইম বা স্টাইক আসে না।

  16. আনোয়ার হোসেন

    আমি যদি অন্যের কন্টেন্ট ব্যবহার করি তাহলে যিনি প্রকৃত মালিক সে স্ট্রাইক দিলে আমি কপিরাইট স্ট্রাইক পাব, নাকি ইউটিউব অটোমেটিক স্ট্রাইক দিবে? আর যদি কন্টেন্ট এর প্রকৃত মালিক স্ট্রাইক না দেয় তাহলে তো পাব না তাই না?

  17. ইউটিউবে অন্নের ভিডিও আপলোড করে সাবস্ক্রাইব বাড়ার পরে অই ভিডিও গুলো ডিলিট করে দিলে কি কোনো সমস্যা হবে?

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Scroll to Top