ইউটিউব মনিটাইজেশন কি? YouTube Monetization নিয়ে বিস্তারিত জানুন

যারা ইউটিউব মনিটাইজেশন কি (YouTube Monetization) নিয়ে বিস্তারিত জানতে চান তাদের জন্য আজকের আর্টিকেলটি অনেক প্রয়োজনীয়। কারণ এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আমি আপনাকে ইউটিউব মনিটাইজেশন নিয়ে সকল প্রয়োজনীয় তথ্য উপস্থাপন করব।

যা আপনার ইউটিউব যাত্রাকে আরো সহজ করবে। আপনি যদি ইউটিউব সফল হতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাকে ইউটিউবের নিয়ম নীতি খুব ভালোভাবে জানতে হবে।

ইউটিউব মনিটাইজেশন কি
ইউটিউব মনিটাইজেশন কি? বিস্তারিত জেনে নিন

আপনাকে আমি শুরুতেই বলে রাখছি, আপনি যদি ইউটিউব থেকে ইনকাম করার জনপ্রিয় পদ্ধতি ইউটিউব মনিটাইজেশন সম্পর্কে ভালো জ্ঞান অর্জন করতে চান, তাহলে অবশ্যই এই আর্টিকেলটি শেষ অব্দি পড়বেন।

এছাড়া কোন প্রশ্ন বা মতামত থাকলে কমেন্ট বক্সে আমাকে জানিয়ে যাবেন। ইনশাল্লাহ আমি আপনার মতামত বা প্রশ্নের সঠিক সমাধান দেওয়ার চেষ্টা করব।

আপনার জন্য পোস্ট:



ইউটিউব মনিটাইজেশন কি (What Is YouTube Monetization?)

ইউটিউব মনিটাইজেশন হচ্ছে এমন একটি প্রোগ্রাম, যে প্রোগ্রামে আপনি যুক্ত হওয়ার মাধ্যমে ইউটিউব কর্তৃপক্ষ আপনার ভিডিওর মধ্যে এড দেখানোর মাধ্যমে আপনার ইউটিউব চ্যানেলে টাকা আয় হবে।

আরো সহজ ভাবে যদি বলি, আপনার ভিডিওতে ইউটিউব কর্তৃপক্ষের এড দেখানোর মাধ্যমে যে ইনকাম হয়ে থাকে তাকে ইউটিউব মনিটাইজেশন বলে। বাংলাদেশে ইউটিউব মনিটাইজেশন খুবই জনপ্রিয় একটি মাধ্যম ইউটিউব থেকে আয়ের ক্ষেত্রে।

আপনাকে আমি আরো পরিষ্কারভাবে বোঝানোর চেষ্টা করছি। আপনি যখন ইউটিউবে বিভিন্ন ধরনের ভিডিও দেখেন সে সময় খেয়াল করবেন মাঝেমধ্যে ভিডিওর মধ্যে বিভিন্ন ধরনের কোম্পানির এড শো করে। এই যে ভিডিওর মধ্যে আপনি অ্যাড দেখতে পান এই অ্যাডের জন্য ভিডিওর মালিক কে ইউটিউব কর্তৃপক্ষ অর্থ প্রদান করে থাকে।

ইউটিউব মনিটাইজেশন কি এটি তো জানলাম। এখন আমরা জানবো কি জন্য ইউটিউব টাকা দেয়।

ইউটিউব কেন টাকা দেয়? (Why does YouTube pay?)

ইউটিউব কিন্তু এমনিতে ভিডিও ক্রিয়েটরদের টাকা দেয় না। এতে ইউটিউবের ও লাভ রয়েছে।

আপনাকে একটি উদাহরণ দিয়ে বুঝানোর চেষ্টা করছি, আমরা যে ইউটিউব ভিডিওতে বিভিন্ন সময় অ্যাড গুলো দেখতে পায়। এই এড গুলো কিন্তু ইউটিউব এমনিতেই এমনিতে দেখায় না। যে কোম্পানির অ্যাড আমরা ইউটিউবে দেখি সেই কোম্পানি ইউটিউবে ভিডিওর মধ্যে এড দেখানোর জন্য ইউটিউবের সাথে চুক্তি করে থাকে। এর জন্য তারা ইউটিউব কে টাকা দিয়ে থাকে।

আর এই টাকা ইউটিউবে যারা ভিডিও আপলোড করে তাদের ভিডিওতে দেখানোর মাধ্যমে ইউটিউব নিজে ও ভিডিও মালিকের ইনকাম হয়ে থাকে। অর্থাৎ ওই কর্তৃপক্ষের কাছে টাকাটা ইউটিউব ও ভিডিও ক্রিয়েটর মিলে নিয়ে থাকে।

Youtube যে ভিডিও মধ্যে অ্যাড দেখায় এর জন্য এই ইনকামের ১০০% এর মধ্যে ৩২% নিজে নিয়ে থাকে আর ৬৮% যারা ভিডিও তৈরি করে তাদেরকে দিয়ে থাকে।

এতক্ষণ তো আমরা, ইউটিউব মনিটাইজেশন কি, ইউটিউব কেন টাকা দেয় এই সম্পর্কে জানলাম। এখন আমরা জানবো ইউটিউব মনিটাইজেশন পাওয়ার শর্ত সমূহ।

ইউটিউব মনিটাইজেশন শর্ত (YouTube Monetization Terms)

একটা সময় ছিল ইউটিউবে ভিডিও আপলোড করার সাথে সাথে ভিডিও মনিটাইজেশন পাওয়া যেত। এই নিয়মটি ছিল ২০১৮ এর পূর্বে। কিন্তু বর্তমানে এই সহজ নিয়মটি ইউটিউব নিজে থেকে তুলে নিয়েছে। এখন আর ইউটিউবে প্রথম ভিডিও ছাড়ার পরেই মনিটাইজেশন অন হয় না।

এখন আপনাকে মনিটাইজেশন পাওয়ার জন্য ইউটিউবের অফিসিয়াল কিছু শর্ত আপনাকে পূরণ করতে হবে। তারপরে না আপনি স্বপ্নের মনিটাইজেশন আপনার ইউটিউব চ্যানেলে দেখতে পাবেন। মনিটাইজেশন পাওয়ার জন্য নিচে শর্তসমূহ দেয়া হলো:

  1. গত এক বছরে আপনার ১,০০০ সাবস্ক্রাইবার থাকতে হবে।
  2. গত এক বছরে আপনার ৪,০০০ ঘন্টা ওয়াচ টাইম থাকতে হবে।
  3. ইউটিউবের শর্ত অনুযায়ী আপনার ভিডিওগুলো সঠিক হতে হবে।
  4. আপনার ইউটিউব চ্যানেলে কোন পলিসি ভাইয়োলোশন (policy villation) থাকা যাবে না।

বাংলাদেশ থেকে ইউটিউব মনিটাইজেশন

একটা সময় ছিল যে বাংলাদেশ থেকে ইউটিউব মনিটাইজেশন চালু করা যেত না। কিন্তু বর্তমান সময়ে আপনি বাংলাদেশের লোকেশন ব্যবহার করে ইউটিউব মনিটাইজেশন চালু করতে পারবেন। পূর্বে অন্য দেশের লোকেশন ব্যবহার করে বাংলাদেশী ইউটিউবাররা মনিটাইজেশন অন করতো।

কোন কোন ইউটিউব চ্যানেল মনিটাইজেশন পাবে না

অনেকেই এটি জানতে চান কোন কোন ইউটিউব চ্যানেল মনিটাইজেশন পাবে না। এই প্রশ্নের উত্তরটি খুবই সহজ। যাদের youtube চ্যানেলটি youtube এর নিয়ম অনুযায়ী পরিচালিত হয় না। তাদের ইউটিউব চ্যানেল কখনো মনিটাইজেশন পাবে না।

ইউটিউব মনিটাইজেশন পাওয়ার জন্য ইউটিউব এর সকল নিয়ম নীতি মেনে কাজ করতে হবে। তবে ইউটিউব চ্যানেলে মনিটাইজেশন অন করে দেবে।

ইউটিউব মনিটাইজেশন থেকে কত টাকা ইনকাম করা যাবে?

ইউটিউব মনিটাইজেশন দ্বারা কি পরিমান অর্থ উপার্জন করা যাবে এই প্রশ্নটি ইউটিউবারদের মনে প্রচুর রয়েছে। আসলে ওইভাবে বলা যায় না যে একটা মনিটাইজেশন চ্যানেল থেকে কি পরিমান অর্থ উপার্জন করা যাবে।

তবে আমার অভিজ্ঞতা থেকে আমি আপনাকে একটি ধারণা দিতে পারব। আপনি কি পরিমাণ অর্থ ইউটিউব মনিটাইজেশন দ্বারা ইনকাম করতে পারবেন।

ইউটিউবের দর্শক

আপনার youtube চ্যানেলের দর্শক যদি হয়ে থাকেন উন্নত দেশ থেকে। যেমন ধরেন যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, জাপান, সিঙ্গাপুর, অস্ট্রেলিয়া, ফ্রান্স, ইতালি, ইত্যাদি। তাহলে কিন্তু আপনার ইনকাম বাংলাদেশের তুলনায় কমপক্ষে দশ গুণেরও বেশি হবে।

বাংলাদেশের পাঁচ হাজার দর্শকদের যদি আপনার ইনকাম হয় এক ডলার। আর যদি আপনার ইউটিউব চ্যানেলের দর্শক উন্নত দেশগুলো থেকে হয়ে থাকে তাহলে আপনার ইনকাম হবে কমপক্ষে ১০ ডলারের মত। তাহলে বুঝতে পারছেন যে আকাশ আর পাতাল ব্যবধান বাংলাদেশ এবং উন্নত দেশগুলোর মধ্যে youtube ইনকামের।

ভিডিও তৈরি করার বিষয়

ইউটিউব ইনকামের মধ্যে ভিডিও তৈরি করার বিষয় খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয় ইনকামের ক্ষেত্রে। আপনার ভিডিও তৈরি করার বিষয়ে যদি হয়ে থাকে প্রযুক্তি, মোবাইল রিভিউ, ব্লগিং, গাড়ি রিভিউ, ইত্যাদি হাই ডিমান্ডের প্রোডাক্ট। তাহলে কিন্তু তুলনামূলক আপনার ইনকাম বেশি হবে অন্যান্য ইউটিউব ভিডিও বিষয়ের চেয়ে।

সেজন্য আপনি যদি অল্প ভিউয়ে ভালো পরিমান অর্থ উপার্জন করতে চান তাহলে আপনার উন্নত দেশ টার্গেট করতে হবে এবং যে সকল বিষয়ে ইউটিউবে বেশি পরিমাণ অর্থ উপার্জন হয়ে থাকে সেই সকল বিষয় নিয়ে কাজ করতে হবে।

আপনার জন্য আমার সাজেশন হচ্ছে, আমরা ইতোমধ্যে ইউটিউবে এ ভিডিও তৈরি করার বিষয় নিয়ে একটি আর্টিকেল প্রকাশ করেছি। আপনি ইচ্ছা করলে ওই আর্টিকেলটি পড়ে ইউটিউবে কোন বিষয়ে ভিডিও তৈরি করলে আপনি ২০২৩ সালে সফল হতে পারবেন তা জেনে নিতে পারেন।

ইউটিউব মনিটাইজেশন নিয়ে কিছু গুরুত্বপূর্ণ কথা

শুধু একটি ইউটিউব চ্যানেল থেকে মনিটাইজেশন দিয়ে ইনকাম করার আশায় বসে থাকলে চলবে না। আপনার উচিত হবে একটি ইউটিউব চ্যানেল দ্বারা যাতে আরো অন্যান্য ভাবে ইনকাম করা যায় এরকম ভাবে কাজ করা।

যেমন বর্তমানে আপনি খেয়াল করলে দেখতে পারবেন যে অনেক ইউটিউব চ্যানেল রয়েছে যারা এফিলিয়েট মার্কেটিং করে ভালো পরিমান অর্থ উপার্জন করতেছে।

আবার এমনও দেখা যায় অনেকে নিজের ব্যবসার মার্কেটিং করতেছি ইউটিউবে। নিজের ব্যবসার মার্কেটিং ইউটিউবে করার মাধ্যমে সেই ব্যবসার দিয়ে সে লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করতেছে।

তাই আপনাকে খুঁজে বের করতে হবে যে আপনার ইউটিউব চ্যানেলে আরো বিভিন্নভাবে ইনকাম করা যায় কিনা। আর বর্তমান সময়ে গুগল খুব অল্প পরিমাণে অর্থ দিয়ে থাকে ভিডিও দেখানোর মাধ্যমে। বিগত বছরের চেয়ে টাকা দেওয়ার পরিমাণ ইউটিউব অনেক পরিমাণে কমিয়ে দিয়েছে।

শেষ কথা,

আপনি যদি ইউটিউব মনিটাইজেশন কি আর্টিকেলটি শুরু থেকে এখন পর্যন্ত পড়ে থাকেন তাহলে আপনি এই ইউটিউব মনিটাইজেশন সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে গেছেন।

আপনি যদি আপনার ইউটিউব চ্যানেলে মনিটাইজেশন পেতে চান তাহলে শুরু থেকে আপনাকে ইউটিউবের সকল নিয়ম নীতি মেনে কাজ করতে হবে। ইউটিউব নিয়ম নীতি সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে আমাদের ওয়েবসাইটে ইউটিউব নিয়ম কানুন সম্পর্কে আলাদা একটি পোস্ট হয়েছে আপনি পড়ে নিতে পারেন।

আপনার যদি ইউটিউব মনিটাইজেশন বা ইউটিউব আপডেটের খবর দ্রুত দেখতে চান, তাহলে আমাদের ওয়েবসাইটটি নিয়মিত ভিজিট করতে পারেন। আমরা নিয়মিত প্রযুক্তি বিষয়ক অনলাইন ইনকাম বিষয়ক আর্টিকেল প্রকাশ করি।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top
Scroll to Top