ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল থেকে আয় করার উপায়

আমরা সারাদিন আমাদের বেশির ভাগ সময়ই ফেবুকে স্ক্রল করতে করতে কাটিয়ে দিই৷ কিন্তু আমরা বেশির ভাগ মানুষই ফেসবুকের একটি কার্যকরী ফিচারের কথা জানি না৷ সেটি হলো ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল

আপনার যদি একটি ফেসবুক পেজ এবং একটি ব্লগ সাইট থাকে তাহলে ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল থেকে আপনি অনেক ভালো পরিমাণ টাকা আয় করতে পারবেন। 

আজকের অনলাইন ইনকাম বিডি’র এই পোস্টে আমরা আপনার সাথে ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব। যদি আপনিও চান ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল থেকে আয় করতে তাহলে সম্পূর্ণ পোস্টটি মনোযোগ দিয়ে পড়বেন। 

ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল থেকে আয়
ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল থেকে আয়

আর্টিকেল সূচি

ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল কি?

আমরা যখন ফেসবুকে স্ক্রল করতে থাকি তখন কোন নিউজ বা লিংক আমাদের চোখে পড়লে ঐ লিংকে থাকা আর্টিকেল পড়ার জন্য আমরা ক্লিক করি লিংকটায়। তখন আমাদেরকে রিডাইরেক্ট করে আরেকটি ব্রাউজারে নিয়ে যাওয়া হয় এবং সেখানে লিংকটি ওপেন হয়।

এটি আমাদের কাছে খুবই বিরক্তিকর একটি ব্যাপার ছিল তাছাড়া অন্য ব্রাউজারে রিডাইরেক্ট হওয়ার কারনে লিংকটি ওপেন হতেও সময় লাগতো। তাই ফেসবুককে আরো বেশি ইউজার ফ্রেন্ডলি করার কারনে ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল নামক ফিচারটি যুক্ত হয়।

ইনস্ট্যান্ট শব্দটির অর্থ হলো তাৎক্ষণিক। যদি কোন ওয়েবসাইট ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলের সাথে যুক্ত থাকে তাহলে সেই ওয়েবসাইটের কোন লিংক ফেসবুকে দিলে সাথে সাথে অন্য কোন ব্রাউজারে রিডাইরেক্ট হওয়া ছাড়া ফেসবুকের মধ্যেই লিংকটি ওপেন হয়ে যাবে।

আমরা ফেসবুকে একটি পোস্টে ক্লিক করার পর সাথে সাথে যেমন পুরো পোস্টটি চলে আসে ঠিক এমনভাবেই দ্রূত গতিতে ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলে যুক্ত থাকা লিংক গুলো ওপেন হয়।

এই ফিচারের ফলে ফেসবুক আরো বেশি ইউজার ফ্রেন্ডলি হয়, ফেসবুকের বিজ্ঞাপন দাতারা তাদের টার্গেটেড অডিয়েন্স পায় আর সবচেয়ে বড় সুবিদা হলো বড় বড় ওয়েবসাইট এবং নিউজ পোর্টাল ফেসবুকের প্রতি আরো আগ্রহী হয়েছে এই ফিচারটির জন্য। 

কখন ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলের যাত্রা শুরু হয়

২০১৫ সালের দিকে ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গ বিশ্বের বড় বড় নিউজ মিডিয়াগুলো ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলের মাধ্যমে তাদের নিউজ লিংক ফেসবুকে শেয়ার করার প্রস্তাব দেন। তার এই প্রস্তাবে হাফিংটন পোস্ট, ন্যাশনাল জিওগ্রাফি, বিবিসি নিউইয়র্ক টাইমস সহ প্রথম সারিতে থাকা বড় বড় নিউজ পোর্টালগুলো ইনস্যান্ট আর্টিকেল ব্যবহার শুরু করে। 

পরবর্তীতে ২০১৬ সালের ২২ শে এপ্রিল ফেসবুক অফিসিয়ালি সবার জন্য ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলকে উন্মুক্ত ঘোষণা করে। এবং তার সাথে আরো বলে ফেসবুকের এই ফিচারটি শুধু মাত্র মোবাইল ইউজারদের জন্য। তার পর থেকেই প্রায় সব ওয়েবসাইট এডমিনরাই তাদের ওয়েবসাইটকে ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলের সাথে যুক্ত করে অর্থ আয় করে।

আপনার জন্য আরও পোস্ট: 

কিভাবে ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল চিনবেন 

ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলে যুক্ত থাকা লিংক গুলোর প্রধান বৈশিষ্ট্য হচ্ছে লিংক গুলো খুব দ্রুত গতিতে ওপেন হয়। ঠিক যেমনটা আমরা ফেসবুক পোস্ট পড়ার সময় পোস্ট গুলো ওপেন হয়। এছাড়াও ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলে যুক্ত থাকা লিংকের যেকোন ছবি কিংবা ভিডিও আপনি হাই রেজুলেশনে দেখতে পারবেন 

আপনার মনে প্রশ্ন আসতে পারে কিভাবে ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল চিনবেন। ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলে যুক্ত থাকা ওয়েবসাইট গুলোর লিংক শেয়ার করলে ডানদিকে একটি বজ্রপাতের চিহ্ন দেখা যাবে। মূলত এই চিহ্ন দেখেই আপনি বুঝবেন ওয়েবসাইটটি ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলে যুক্ত আছে। 

ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল চিনার উপায়

ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল চিনার উপায় ০২
ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল চিনার উপায়

ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলের সুবিধা এবং অসুবিধা 

ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল ফিচারটি মূলত তৈরি হয়েছে ইউজারদের সুবিধার জন্য। এবং বড় বড় নিউজ পোর্টাল গুলো যেন ফেসবুকমুখী হয় তার জন্য। এই ফিচারটির যেমন সুবিধা রয়েছে তেমন অসুবিধাও রয়েছে।

কিন্তু বলতে গেলে ইউজারদের কোন অসুবিধা হয় না এই ফিচারটির জন্য তবে যারা পাবলিশার্স অর্থাৎ আমাদের মতো যারা ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল এর মাধ্যমে আয় করতে চায় তাদের জন্য কিছু অসুবিধা থেকেই যায়। চলুন সুবিধা এবং অসুবিধা গুলো নিয়ে বিস্তারিত জানি। 

ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলের সুবিধাঃ- 

  • এটির কারনে ইউজারেরা খুব সহজেই কোন লিংকে থাকা আর্টিকেল পড়তে পারে। খুব দ্রুত গতিতে লোড হওয়ায় এটি ইউজারদের জন্য বেশ সুবিধাজনক হয়েছে। 
  • একটি আর্টিকেল একবার লোড হওয়ার পর সেটি আবার পড়তে গেলে দ্বিতীয়বার লোড হয় না। 
  • পাবলিশাররা ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলে তাদের ওয়েবসাইট যুক্ত করলে ঐ ওয়েবসাইটের গুগল রেংকিংয়ে কোন প্রভাব পড়ে না।
  • পাবলিশাররা ফেসবুক থেকে প্রচুর পরিমানে ভিজিটর পেতে পারে এই ফিচারের কারনে। 
  • ফেসবুক এড ব্যবহার করে পাবলিশার্সদের কন্টেন্ট মনিটাইজ করতে পারবে।
  • যেহেতু ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলে পেজ স্পিড অনেক ভালো তাই FB CTR বৃদ্ধি পাবে। 

ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলের অসুবিধা  

  • কোন পাবলিশার্স যদি তার ওয়েবসাইট ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলে যুক্ত করে তাহলে তার ওয়েবসাইটের অর্গানিক ট্রাফিক কমে যাবে। 
  • ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল খুব দ্রুততার সাথে পেজ লোড করে। তাই যদি আপনার ওয়েবসাইট ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলে যুক্ত করেন অনেক প্লাগিন সঠিকভাবে কাজ করবে না৷ 
  • যদি আপনি ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল থেকে আয় করতে চান তাহলে আপনার মূল লক্ষ্য হতে হবে ফেসবুক ট্রাফিক কারন ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলে যুক্ত ওয়েবসাইট গুলো অর্গানিক ট্রাফিক খুব কম পায়।

এই হলো মূলত ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলের সুবিধা এবং অসুবিধা। 

ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল থেকে আয় করতে কি কি লাগবে?

আপনি যদি ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল থেকে আয় করতে চান তাহলে আপনার দুটি জিনিস থাকা লাগবে

  1. একটি ফেসবুক পেজ
  2. একটি ওয়েবসাইট 

একটি ফেসবুক পেজ এবং একটি ওয়েবসাইটই প্রয়োজন ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল থেকে আয় করার জন্য। কিন্তু শুধু মাত্র একটি ওয়েবসাইট এবং পেজ দিয়েই আপনি ইনকাম শুরু করে দিতে পারবেন না।

কারন ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলে রয়েছে অনেক টার্মস এবং কন্ডিশন। আপনাকে অবশ্যই সেই টার্মস এন্ড কন্ডিশন গুলো মেনে চলতে হবে।

চলুন জেনে নিই এসব টার্মস এন্ড কন্ডিশন সম্পর্কে বিস্তারিত। 

ফেসবুক পেজ 

ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলে যুক্ত হওয়ার জন্য একটি ফেসবুক পেজ অবশ্যই লাগবে। কিন্তু শুধু মাত্র একটি ফেসবুক পেজ থাকলেই ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলে এপ্রুভ পাওয়া সম্ভব নয়।

অনেক আগে একটি পেজ থাকলে ফেসবুক সহজেই ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলের জন্য এপ্রুভাল দিয়ে দিতো কিন্তু এখন এপ্রুভাল পাওয়া অনেক কষ্টকর হয়ে গিয়েছে।

ফেসবুক পেজটিকে অবশ্যই পুরানো হতে হবে নতুন কোন ফেসবুক পেজে ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল এপ্রুভ পাওয়া যায়না। কতদিন পুরোনো পেজ হতে হবে তা সম্পর্কে ফেসবুক কোন স্পষ্ট ধারনা দেয় নি। 

আবার ফেসবুক পেজে যথেষ্ট লাইক এবং ফলোয়ারস থাকলে ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলে এপ্রুভাল পেতে সুবিধা হয়। কিন্তু ফলোয়ারস না থাকলে যে এপ্রুভ পাবেন না তেমন না।

যদিও আমার উপদেশ থাকবে যথেষ্ট ফলোয়ারস না হওয়া পর্যন্ত ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলের জন্য আবেদন না করা। কারন ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলে যুক্ত হওয়ার পর আপনার ওয়েবসাইটের অর্গানিক ট্রাফিক কমে যাবে এবং ফেসবুকের ট্রাফিকের উপরই নির্ভর করবে আপনার ইনকাম। তাই ভালো পরিমাণ রিচ এবং ফলোয়ারস হওয়ার পরই আবেদন করা উচিত। 

ওয়েবসাইট 

ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল থেকে আয় করার জন্য আরেকটি জিনিস দরকার সেটি হলো ওয়েবসাইট। শুধু মাত্র একটি ওয়েবসাইট থাকলেই ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল থেকে আয় সম্ভব নয়। কারন আপনার ওয়েবসাইটিকে প্রথমে ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলের যাবতীয় সকল শর্ত মানতে হবে তবেই ওয়েবসাইটিকে ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল এপ্রুভাল দিবে।

ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলে যুক্ত হতে হলে আপনার ওয়েবসাইটে প্রথমত ১০০% ইউনিক কন্টেন্ট থাকতে হবে। ফেসবুক এ ব্যাপারে খুব সচেতন তাই তারা অফিশিয়ালি বলেছেন তারা আপনার আবেদনের পর আপনার ওয়েবসাইটিকে মেনুয়ালি চেক করবেন।

কমপক্ষে ১০-১২ টি ইউনিক কন্টেন্ট থাকতে হবে আপনার ওয়েবসাইটে তবেই সেটি ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলের জন্য উপযুক্ত হবে৷ 

শুধু কন্টেন্ট দিলেই হবে না আপনার কন্টেন্ট ক্যাটাগরির বিষয়ে সচেতন থাকতে হবে। যেসব ক্যাটাগরি ফেসবুক এলাউ করে না ঐ সব ক্যাটগরির কোন কন্টেন্ট পাবলিস করতে পারবেন না। 

ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলের সাথে কিভাবে যুক্ত হওয়া যায় 

ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলে যুক্ত হওয়া খুবই সহজ কাজ। চলুন কয়কটি সহজ স্টেপ ফলো করে আমরা আমাদের ওয়েবসাইটকে ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলের সাথে যুক্ত করি।

Step 1:- 

আপনার কম্পিউটারে থাকা কোন একটি ব্রাউজার ওপেন করে এই লিংকে → https://instantarticles.fb.com প্রবেশ করুন।

Step 2:- 

এইবার আপনাকে সাইন আপ করতে হবে। সাইন আপ করার পর আপনি কোন পেইজে ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল ফিচারটি যুক্ত করতে চান সেটি সিলেক্ট করতে হবে। 

Step 3:- 

পেইজ সিলেক্ট করার পর নিচের দিকে টার্মস এন্ড কন্ডিশন এর একটি বক্স আসবে সেটিতে টিক মার্ক দিয়ে কন্টিনিউ করতে হবে। 

Step 4:- 

এরপর আপনি সরাসরি আপনার ফেসবুক পেজে চলে যাবেন। তারপর Publishing Tools নামের অপশন পাবেন একটি সেখানে ক্লিক করতে হবে। 

Step 5:- 

Publishing Tools এ ক্লিক করার পর নিচের দিকে বাম পাশে “Facebook Instant article” নামের একটি নতুন অপশন দেখতে পারবেন। আপনাকে সেই অপশনে ক্লিক করে কন্টিনিউ করতে হবে। 

Step 6:- 

এরপর কনফিগার নামের একটি অপশন দেখবেন। সেই অপশনে ক্লিক করে “Authorize Your site ” অপশনে ক্লিক করতে হবে। 

Step 7:-

এই অপশনে ক্লিক করার পর নিচে স্ক্রল করলে দেখতে পারবেন আপনার ওয়েবসাইটের লিংক দেওয়ার একটি বক্স আছে সেখানে আপনার ওয়েবসাইটের লিংক দিতে হবে।

আপনার ওয়েবসাইট যদি ওয়ার্ডপ্রেসে থেকে থাকে তাহলে “facebook instant article” নামের একটি Add ons যুক্ত করে সেখানে আপনার ওয়েবসাইটের url বসিয়ে সাবমিট করে দিবেন। 

আর যদি ওয়েবসাইট html এ বানানো হয় তাহলে আপনাকে শুধু ওয়েবসাইট url বসিয়ো ক্লেইম করতে হবে। 

যদি ক্লেইম করতে না পারেন তাহলে আপনার ডেভেলপারের সাথে যোগাযোগ করুন। 

Step 8:- 

উপরের কাজগুলো সঠিক ভাবে করতে পারলে আপনার ওয়েবসাইটের যত গুলো আর্টিকেল থাকবে সব ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলে যুক্ত হয়ে যাবে।

আরও দেখতে পারেন: 

ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল এপ্রুভাল পেতে কত দিন লাগে? 

ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলে আবেদন করার ঠিক কত দিন পরে এপ্রুভাল পাবেন তা সঠিক ভাবে বলা সম্ভব নয়। সাধারণত ২-৩ দিন পর্যন্ত সময় লাগে। কিন্তু ক্ষেত্রবিশেষে ৭-৮ দিন পর্যন্ত সময় লাগতে পারে। 

একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো, যদি ফেসবুক একবার রিভিউ করার পর রিজেক্ট করে তাহলে সাথে সাথে আবার আবেদন করবেন না। আপনার ওয়েবসাইট কেন রিজেক্ট হয়েছে সেটি বুঝার চেষ্টা করুন। কোন সমস্যা থাকলে সেটি সমাধান করার চেষ্টা করুন তারপরে আবার আবেদন করুন। যদি সব ঠিকঠাক থাকে তাহলে অবশ্যই এপ্রুভাল পাবেন। 

Facebook Instant Article এর শর্ত কি?

Facebook Instant article এর শর্ত গুলো সম্পর্কে আপনি তাদের অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে অনেক ভালোভাবে জানতে পারবেন। বুঝার সুবিধার্থে আমরা শর্ত গুলো নিয়ে একটু আলোচনা করছি।

Facebook instant article এর শর্ত দুইরকমের একটি হলো কন্টেন্ট পলিসি অর্থাৎ যে শর্ত গুলো আপনার ওয়েবসাইট এবং ওয়েবসাইটের কন্টেন্টের জন্য আরেকটি শর্ত হচ্ছে ফেসবুক পেজ পলিসি যে শর্ত গুলো আপনার ফেসবুক পেজের জন্য। চলুন একটু বিস্তারিত জানি। 

কন্টেন্ট পলিসিঃ- 

পলিসি গুলো পয়েন্ট আকারে দেওয়া হলোঃ- 

  • ওয়েবসাইটে কন্টেন্ট ১০০% ইউনিক হতে হবে। কোন প্রকার কপি কন্টেন্ট ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল এপ্রুভ করবে না। 
  • ওয়েবসাইট একেবারে নতুন হলে সাথে সাথে আবেদন না করে কিছু দিন পরে করুন। কারন নতুন সাইট এপ্রুভাল পাওয়ার সম্ভাবনা কম থাকে।
  • Multiple broken links, duplicative or minimal content এ ধরনের কোন ইস্যু থাকা যাবে না। 
  • আপনার ওয়েবসাইটে একাউন্ট করা ছাড়া কোন আর্টিকেল পড়া যাবে না এমন হয় তাহলে ঐ সাইট এপ্রুভাল পাবে না। 
  • সাইটে যদি কোন অবৈধ বিষয় নিয়ে আর্টিকেল পাবলিশ করা হয় তাহলে এপ্রুভাল পাবে না। 

ফেসবুক পেজ পলিসি:

পলিসি গুলো পয়েন্ট আকারে দেওয়া হলোঃ-

  • ফেসবুক পেজের সম্পূর্ণ মালিকানা আপনার থাকতে হবে। 
  • আপনার পেজের এবাউট সেকশনে অবশ্যই আপনার ওয়েবসাইটের লিংক যুক্ত থাকতে হবে। 
  • আপনার ওয়েবসাইটে লেখা আর্টিকেল গুলোর লিংক ফেসবুক পেজে শেয়ার করা থাকতে হবে। 
  • আপনার ফেসবুক পেজটি নতুন হলে কয়েকদিন অপেক্ষা করে আবেদন করুন। একদম নতুন ফেসবুক পেজ এপ্রুভ হবে না। 

এছাড়াও আরো অনেক শর্ত আছে তা নিয়ে বিস্তারিত জানতে এই লিংকে ক্লিক করুন। 

ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল থেকে কত টাকা ইনকাম করা সম্ভব?

ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল থেকে প্রথানত আয় হয় এড এর মাধ্যমে। অর্থাৎ এডভারটাইজার ফেসবুককে যে অর্থ দেয় ফেসবুক সে অর্থের কিছু অংশ পাবলিশারদের দেয় এবং বিনিময়ে তাদের কন্টেন্টে এড বসায়।

ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল থেকে কত টাকা আয় করবেন তা মূলত নির্ভর করবে আপনার আর্টিকেলের টপিক এবং আপনার অডিয়েন্স লোকেশনের উপর।

যদি আপনার অডিয়েন্স উন্নত কোন দেশের হয় তাহলে আপনি প্রতিদিন ১০০ ডলার পর্যন্ত আয় করতে পারবেন এবং তার বেশিও সম্ভব।

তবে যদি আপনার অডিয়েন্স বাংলাদেশি হয় তাহলে আপনার প্রচুর অডিয়েন্স প্রয়োজন ভালো পরিমান টাকা ইনকাম করতে। যদি আপনি ধৈর্যশীল হন এবং লেগে থাকতে পারেন তবে আপনিও বাংলাদেশি অডিয়েন্স দিয়ে ভালো আয় করতে পারেন।

যেমন আমাদের দেশের নিউজ পোর্টাল গুলো এই ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল থেকে হাজার হাজার ডলার আয় করছেন। সুতরাং ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল থেকে আয় অনলাইন ইনকামের বিরাট একটি সুযোগ রয়েছে আপনার জন্য। 

ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলের টাকা কিভাবে হাতে পাবেন? 

অনেকেই এখন ভাবছেন ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল ব্যবহার করে যদি টাকা ইনকাম করি তাহলে এই টাকা হাতে পাব কেমনে?

ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল ব্যবহার করে আপনি আপনার উপার্জিত টাকা হাতে পাওয়ার জন্য প্রথমেই আপনাকে একটি ব্যাংক একাউন্ট খুলতে হবে। তারপর একাউন্ট ডিটেইলস ফেসবুকে সাবমিট করলেই আপনার ব্যাংকে টাকা চলে আসবে। কিন্তু ব্যাংক একাউন্ট খোলার সময় কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলে নিবেন ফেসবুকের পেমেন্ট আসতে সমস্যা হবে কিনা। কিছু কিছু ব্যাংকে পেমেন্ট আসতে ঝামেলা হয়।

ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল আর গুগল এডসেন্স কি এক?

ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল এবং গুগল এডসেন্স এই দুটিই মূলত বিজ্ঞাপন দাতা প্রতিষ্ঠান।

এই দুই প্রতিষ্ঠানই এডভারটাইজারদের বিজ্ঞাপন পাবলিশারদের দিয়ে পাবলিশারদের সাথে রেভিনিউ ভাগাভাগি করে। ফেসবুক ইনস্ট্যাস্ট আর্টিকেলের বিজ্ঞাপন গুলো হলো ফেসবুকের বিজ্ঞাপন। সেগুলো শুধু মাত্র ফেসবুকের মধ্যেই প্রদর্শন হয়।

অপরদিকে গুগল এডসেন্সের বিজ্ঞাপন গুলো হলো গুগলের বিজ্ঞাপন। গুগলের বিজ্ঞাপন শুধু মাত্র ওয়েবসাইটে প্রদর্শন হয়। এছাড়া এপ, ইউটিউব এবং গুগল সার্চ ইঞ্জিনে গুগলের বিজ্ঞাপন প্রদর্শন হয়। সুতরাং ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল এবং গুগল এডসেন্সের কাজের ধরণ একই হলেও তারা দুটি ভিন্ন প্ল্যাটফর্মে কাজ করে। 

ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল নাকি গুগল এডসেন্স কোনটি বেশি লাভ জনক?

এই প্রশ্নের উত্তর একেক জনের ক্ষেত্রে একেক রকম। কোনটি বেশি লাভ জনক সেটি নির্ভর করবে আপনার ওয়েবসাইটের নিশ বা টপিকের উপর। কিছু টপিক আছে যেগুলোর অডিয়েন্স গুগলে অনেক বেশি আবার কিছু টপিকের অডিয়েন্স ফেসবুকে বেশি।

আপনার নিশ বা টপিকটি রিসার্চ করে আপনাকে বুঝতে হবে কোন জায়গায় আপনার অডিয়েন্স বেশি হবে যদি গুগোলে আপনার অডিয়েন্স বেশি থাকে তাহলে গুগল এডসেন্স আপনার জন্য লাভজনক হবে। যদি ফেসবুক বেশি থাকে অডিয়েন্স তাহলে ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল বেশি লাভ জনক হবে।

সাধারণত নিউজ টাইপের ওয়েবসাইট গুলো ফেসবুকে ভালো অডিয়েন্স পাই। তাই ঐ সব ওয়েবসাইটের জন্য ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল লাভজনক হবে।

ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল মনিটাইজ করার উপায়

ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল মনিটাইজ করার অনেক উপায় রয়েছে। কিন্তু প্রধান উপায় হলো ফেসবুক এড দ্বারা মনিটাইজ করা। যেমনটা গুগল এড দ্বারা আমরা ওয়েবসাইট মনিটাইজ করি ঠিক তেমনই।

আবার ফেসবুক পেজে যদি অনেক ফলোয়ারস থাকে তাহলে আপনি ভালো ভালো Sponsorship নিয়েও আয় করতে পারেন। ফেসবুক পেজের জন্য এখন অনেক বেশি Sponsor পাওয়া যায়।

অন্যদিকে আপনি এ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কিংবা নিজের সার্ভিস/প্রোডাক্ট বিক্রি করেও আপনার ফেসবুক পেজ থেকে আয় করতে পারবেন। মোটকথা ফেসবুক ইনকামের সুযোগ অনেক আছে। শুধু অনেক ভালে ফলোয়ারস লাগবে তাহলেই হবে। 

ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল ইনকাম বৃদ্ধি করার উপায়ঃ- 

ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলের ইনকাম বৃদ্ধি করার প্রধান উপায় হলো উন্নত দেশগুলোকে টার্গেট করা। সাধারণত বাংলাদেশ বা ইন্ডিয়ার অডিয়েন্স থেকে ইনকাম কম হবে।

আরেকটি উপায় হলো ফলোয়ারস। আপনার পেজের ফলোয়ারস যত বেশি বাড়বে আপনার ইনকাম তত বেশি হবে। ইনকামটি যে শুধু ফেসবুক এডস নির্ভর তা না আপনার পেজের লাইক কমেন্ট ভালো থাকলে আপনি অনায়াসে ইনকাম করতে পারবেন। এছাড়া আর তেমন কোন সহজ উপায় নেই ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেলের ইনকাম বৃদ্ধি করার জন্য।

ফেসবুক পেজে ফলোয়ারস বৃদ্ধির উপায়

ফেসবুক পেজে ফলোয়ারস দুই ভাবে বৃদ্ধি করা যায়। একটি হলো পেইড মার্কেটিং আরেকটি হলো ফ্রি মার্কেটিং।

পেইড মার্কেটিং হলো ফেসবুক পেজ বুস্ট করার মাধ্যমে। যদি বুস্ট করেন তাহলে ফেসবুক আপনার পেজ এবং পোস্ট গুলো খব দ্রুত আপনার টার্গেটেড অডিয়েন্সের কাছে পৌঁছে দিবে এতে আপনার পেজের ফলোয়ার বেড়ে যাবে। কিন্তু তার বিনিময়ে ফেসবুককে কিছু অর্থ দিতে হবে।

আর ফ্রী মার্কেটিংয়ের ক্ষেত্রে আপনার নিজেকেই ফেসবুক পেজটি সবার কাছে শেয়ার করতে হবে। আপনার পেজ রিলেটেড বড় বড় গ্রুপে পোস্ট করে সবাইকে ফলো করতে বলুন। আর আপনার কন্টেন্ট উন্নত করুন যাতে মানুষ আপনার কন্টেন্ট থেকে উপকৃত হয় ও অন্যেরা শেয়ার করে তবেই আপনার পেজটি জনপ্রিয় হবে।

শেষ কথা 

আজকের এই পোস্টে ফেসবুক ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল থেকে আয় করার জন্য যাবতীয় সকল তথ্য দেওয়ার চেষ্টা করেছি। আশা করি আপনি উপকৃত হয়েছেন এই পোস্ট থেকে। কোন প্রকার সমস্যা হলে অবশ্যই কমেন্ট করবেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!
Scroll to Top
Copy link
Powered by Social Snap