গেম খেলে টাকা আয় করার উপায়

গেম খেলে টাকা আয় করার উপায় ২০২১: আমরা এমন এক শতাব্দী-তে অবস্থান করছি যেখানে মানুষ রোজ সকালে উঠে কোর্ট টাই পড়ে অফিসে যাওয়ার প্রতি আগ্রহ হারিয়ে ঘরে বসে অনলাইনে আয় রোজগার করতে বেশি আগ্রহী হয়ে উঠছে। এই আগ্রহটা অবশ্যই ডিজিটাইলেশনের আর্শীবাদ।

কিন্তু মানুষ এসব ভার্চুয়াল দুনিয়ার যত গভীরে যাচ্ছে, তত প্রতারণার হার বাড়ছে এসব জায়গায়। সঠিক জ্ঞান অথবা অল্প জ্ঞান নিয়ে যদি আপনি এসব ভার্চুয়াল বিশ্বে আসেন তাহলে আপনিও প্রতারিত হতে পারেন। হয়ত হয়েছেনও। 

আমরা যখন বুঝতে পারি ঘরে বসে অনলাইন থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করা যায় তখন আমরাও চায় লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করতে। এবং এ বিষয়ে রিসার্চ শুরু করি। তখনই আমরা বেশিরভাগ সময় পরোক্ষভাবে প্রতারিত হয়।

এক শ্রেণীর মানুষ আমাদের বলে গেম খেলে  টাকা আয় করার কথা। সারাদিন গেমস খেলে কিছু না বুঝে না জেনে লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করার কথা বলা হয়।

আজকে এই গেমস খেলে কিভাবে আয় করা যায় এবং কেন গেমস খেলে আয় করার উপায়গুলো পরোক্ষ প্রতারণার হাতিয়ার সেই নিয়ে বিস্তারিত বলব। আপনি যদি গেমস খেলে আয় করার জন্য আগ্রহী হয়ে থাকেন অবশ্যই এই পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়ুন।

গেম খেলে টাকা আয় করার উপায়
গেম খেলে টাক ইনকাম করুন!!

বর্তমানে অনলাইন লক্ষ নয় কোটি টাকা আয়ের একটি প্ল্যাটফর্ম। কিন্তু সেই কোটি টাকা আয় কিভাবে করতে হয় তা আপনাকে আগে জানতে হবে।

একটু ভাবুন তো আপনি সারা মাসে অনেক টাকা খরচ করেন অর্থাৎ কাউকে না কাউকে আপনার টাকাটি দিয়ে সেই টাকা খরচ করেন কিন্তু আপনি কাদের টাকা দেন? এখন আপনি বলবেন আপনি মুদি দোকানে চাল কিনে দোকানদারকে টাকা দিয়েছেন। কেন দিয়েছেন?

  কারন সেই মুদি দোকানদার আপনাকে চাল দিয়েছে যেটি আপনার জন্য মূল্যবান। এভাবেই যারা আমাদের মূল্যবান কোন বস্তু বা সার্ভিস দিয়ে থাকে তাদেরকেই আমরা টাকা দিই। অনলাইনেও ঠিক এমনই৷। আপনি যখন কাউকে মূল্যবান কিছু দিয়ে সাহায্য করতে পারবেন সে আপনাকে টাকা দিবে। 

আপনি যখন মোবাইল দিয়ে ভিডিও গেমস খেলবেন তখন কার উপকার হবে? কারোই উপকার হবে না বরং বেশিক্ষণ গেমস খেললে আপনার ক্ষতি হবে। সুতরাং কারোই যেহেতু লাভ হচ্ছে না সুতরাং কেউই আপনাকে টাকা দিবে না!!! 

কিন্তু কিছু কিছু মোবাইল Apps নানা ধরনের গেমসকে প্রমোশন করে থাকে তারা আপনাকে হয়ত বলবে কোন একটি গেমস ইন্সটল করে খেললে আপনাকে ১ ডলার দেওয়া হবে। এভাবে ১০০ ডলার আয় করলে আপনি টাকা উত্তলন করতে পারবেন।

কিন্তু ১০০ ডলার আয় করতে ১০০ গেমস খেলার পর উক্ত এপস আপনাকে পেমেন্ট দিবে নাকি তার কোন নিশ্চয়তা নেই!! এক দল মানুষ প্রায়ই দাবি করে এমন কিছু কিছু এপস পেমেন্ট করে অনেকেই প্রুফও দেখায়৷ 

অবশ্যই দেখবেন: 

গেম খেলে টাকা আয়ের জন্য কি কি লাগবে?

গেম খেলে টাকা আয় করার জন্য আমরা দুটি উপায় শেয়ার করব। একটি অস্থায়ী অপরটি স্থায়ী। অস্থায়ী উপায়টি হলো মোবাইল app দিয়ে গেম খেলতে হবে। যেটির জন্য শুধু একটি স্মার্ট ফোন থাকলেই হবে৷ সেই স্মার্ট ফোনে app ইনস্টল করে আপনাকে গেম খেলতে হবে৷

আর স্থায়ী উপায়টির জন্য আপনাকে কোন একটি গেমের উপর সঠিক দক্ষতা এবং পেশন থাকতে হবে। আসলে সত্যি বলতে যেকোন ভাবে টাকা আয় করতে হলে সঠিক দক্ষতার প্রয়োজন। দক্ষতা ছাড়া কেউ কাউকে টাকা দেয়না। 

গেম খেলে টাকা আয় করার উপায়

যাই হোক যদি গেমস খেলে সত্যিই আয় করতে হয় তাহলে দুটি উপায় আছেঃ-

  • অস্থায়ী। 
  • স্থায়ী। 

গেম খেলে আয় করার অস্থায়ী উপায়ঃ-

গেম খেলে আয়ের অস্থায়ী উপায় মানে হলো মোবাইল apps দিয়ে আয় অর্থাৎ এমন সব উপায় যেগুলোতে আমি আপনাকে নিশ্চয়তা দিতে পারব না আপনি কতদিন ইনকাম করতে পারবেন বা কত টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

কিন্তু এই টুকু নিশ্চয়তা দিতে পারব গেম খেলে প্রতিদিন ৬০ থেকে ২০০ ডলার আয় করা সম্ভব নয়! এজন্য আমরা এটা উল্লেখ করলাম কারন “গেম খেলে প্রতিদিন 60 থেকে 200 ডলার আয়” অনেকে গুগলে এটি অনুসন্ধান করতেছে সেজন্য এটি গুগল সার্চ ট্রেন্ডে পরিণত হয়েছে।

 আমরা এখন পরিচিত হয়ে আসব ঐ সকল এপ এর সাথে যেখান থেকে হয়ত আপনি কিছু ভিডিও গেম খেলে আয় করতে পারবেন। 

Clip Claps:- 

Clip claps একটি গেম খেলে টাকা আয়ের app।অনেকদিন ধরে মার্কেটে আছে এবং যথেষ্ট পেমেন্ট প্রুফও আছে এই এপটির। এখানে অনেক গুলো ফিচার আছে যেমন গেমস খেলা, ভিডিও শেয়ার করা, গেমস ডাউনলোড করা।

গুগোল প্লে স্টোরেই এটি রয়েছে এবং ইনস্টল করে সহজে জিমেইল কিংবা ফেইসবুকের মাধ্যমে এখানে একাউন্ট খুলতে পারবেন। চলুন এটির মধ্যে কিভাবে আয় করবেন সেটি নিয়ে বিস্তারিত বলি।

ভিডিও শেয়ারিংঃ- ভিডিও দেখে কিংবা ভিডিও শেয়ার করে এখানে আয় করা যায়। যদি আপনি কোন নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত ভিডিও দেখেন তাহলে তারা আপনাকে কিছু কয়েন দিবে এভাবে কয়ন জমিয়ে জমিয়ে সেই কয়েনকে ডলার এ কনভার্ট করে টাকাটা নিতে পারেন।

আবার আপনি যদি কোন একটি ভিডিও আপলোড দেন তাহলে ঐ ভিডিও’র ভিউসের উপর আপনাকে কয়েন দেওয়া হবে।

গেম খেলাঃ- এই এপটির মেইন কাজ হলো গেম খেলা এখানে ৩/৪ রকমের গেম রয়েছে সেগুলো খেলে আপনাকে কয়েন আর্ন করতে হবে। 

গেম ইনস্টলঃ- এখানে একটি ফিচার আছে গেম ইনস্টল করে আয় করার। তারা আপনাকে কতগুলো গেম দিবে সেই গেম গুলো ইনস্টল করে কিছুক্ষণ খেললে আপনি কিছু কয়েন আয় করবেন। 

এভাবে এসব কিছুর মাধ্যমে কয়েন আয় করে সেই কয়েনকে ডলারে কনভার্ট করে পেপালের মাধ্যমে উইথড্র করতে পারবেন। মিনিমাম উইথড্র ১০ ডলার।

আর আপনার জন্য: 

গেম খেলে আয়ের স্থায়ী উপায়ঃ- 

আপনি যদি কোন গেমের প্রতি সত্যিই পেশনেট হয়ে থাকেন এবং উক্ত গেমের উপর যথেষ্ট দক্ষতা থাকে তাহলে এই স্থায়ী উপায়গুলো আপনার জন্য।

গেমিং ইউটিউবঃ-

বর্তমানে কিছু অনলাইন সারাদেশ জুরেই অনেক জনপ্রিয়তা পেয়ে গেছে। তাদের মধ্যে PUBG এবং Free fire অন্যতম। এসব গেম বর্তমানে আমাদের দেশে তরুণদের মধ্যে অনেক বেশি জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে তাই ইউটিউবে তারা এসব গেমের ভিডিও দেখতে খুব পছন্দ করে।

যদি আপনি এসব গেমে এক্সপার্ট হয়ে থাকেন তাহলে আপনিও খুলে ফেলতে পারেন একটি ইউটিউব চ্যানেল এবং সেখানে দিতে পারেন আপনার গেম খেলার সময় ধারন করা কিছু ভিডিও অর্থাৎ গেমপ্লে। যদি আপনার দক্ষতা ভালো থাকে তাহলে আপনার ভিডিও খুব সহজে জনপ্রিয় হয়ে উঠবে।

লাইভ স্ট্রিমিংঃ- 

অনলাইন গেম গুলো তরুনদের আবেগের একটি জায়গা হয়ে গিয়েছে এবং এই আবেগ থেকে তারা গেমের পিছনে খরচ করছে অনেক টাকা। এবং যারা লাইভ স্ট্রিমিং করে এবং ভালো দক্ষতা আছে তারা ডোনেশন বা সুপার চ্যাট এর মাধ্যমে ভলো অংকের টাকা আয় করতে পারে তবে সেটির জন্য তাদের যথেষ্ট জনপ্রিয় হতে হবে।

গেম টুর্নামেন্ট খেলেঃ-

এসব অনলাইন গেমকে কেন্দ্র করে এখন সারাবিশ্বে আয়োজন হয় লক্ষ লক্ষ টাকার টুর্নামেন্ট। আপনার যদি গেমের প্রতি যথেষ্ট দক্ষতা থাকে তাহলে আপনিও যুক্ত হতে পারেন এসব টুর্নামেন্টে এবং আয় করতে পারেন ভালো অংকের টাকা কিন্তু বেশিরভাগ বড় বড় টুর্নামেন্টে যুক্ত হতে হলে আপনাকে প্রথমে রেজিষ্ট্রেশন বা জয়নিং ফি দিতে হবে।

গেম টেস্টটার

আপনি যদি গেম প্রেমি একজন মানুষ হয়ে থাকেন তাহলে আপনি জানেন একটি ভলো গেমের কি কি ফিচার থাকতে হয়। কোন জিনিসটা কেমন হলে তা দর্শকদের আকৃষ্ট করবে। আপনার মধ্যে যদি এসব বিষয় নিয়ে ধারণা থাকে তাহলে আপনি একজন গেম টেস্টার হিসেবে ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস গুলোতে ভালো কাজ করতে পারবেন।

এক্ষেত্রে আপনার ক্লায়েন্ট আপনাকে একটি গেম দিয়ে সেটি খেলে কোন জিনিস ইমপ্রুভ করা দরকার, ওভারঅল পারফরম্যান্স সম্পর্কে জানাতে বলবে এবং বিনিময়ে আপনাকে খুব ভালো অংকের টাকা দিবে।

গেম ব্লগ সাইট তৈরি করে 

আগেই বলেছি গেম খেলার প্রতি বর্তমান তরুনদের মনে অন্যরকম একটি আগ্রহ কাজ করে। আপনি যদি কোন একটি নির্দিষ্ট গেমের উপর যথেষ্ট দক্ষতা অর্জন করেন তাহলে সেই গেম নিয়ে একটি ব্লগ সাইট খুলতে পারেন। সেখানে আপনি গেম টিউটোরিয়াল এবং গেমের মধ্যে সামনে কেমন আপডেট আসবে ইত্যাদি নিয়ে লিখবেন।

তারপর আপনার ব্লগ থেকে আপনি নানা ভাবে আয় করতে পারবেন। যেহেতু গেমের প্রতি আগ্রহী মানুষ বেশি তাই আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটে প্রচুর পরিমান ট্রাফিক আসার সম্ভাবনা রয়েছে। কিন্তু আপনাকে একটি ব্লগ শুরু করার আগে ব্লগিং এবং কন্টেন্ট রাইটিংয়ের কিছু প্রাথমিক ধারণা থাকতে হবে।

Inboxdollar:-

Inbox dollar প্রধানত সার্ভে সাইট। কিন্তু এই সাইটটির মধ্যে কিছু গেমসও অফার করে যেগুলো খেলে প্রতি ঘন্টায় ১-২ ডলার আয় করতে পারবেন। কিন্তু inbox dollar এখন সবদেশ থেকে একাউন্ট এপ্রুভ করছে না।

Quize:-

আমাদের মধ্যে অনেকেই আছে যারা সাধারণ জ্ঞান ভালো পারে। অনেক এপ বা ওয়েবসাইট অনেক সময় কিছু Quize এর আয়োজন করে যেখানে বিজয়ীদেরকে টাকা দেওয়া হয়। এসব ওয়েবসাইট বা এপ গুলো তৈরী হয় সাধারণত কোন ইভেন্টকে কেন্দ্র করে। তাই সঠিক ভাবে এমন কোন এপ বা ওয়েবসাইটের নাম বলা কঠিন। কিন্তু যদি গুগোল করেন এমন অনেক এপ বা ওয়েবসাইট পাবেন।

Micro job সাইট থেকেঃ-

Microjob সাইট এর স্থে আমরা সবাই পরিচিত। এগুলো এমন কিছু সাইট যেখানে ছোট খাটো কাজ করার জন্য টাকা দেওয়া হয়। কিন্তু টাকার পরিমাণটাও কম। এসব সাইট গুলোর মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় হলো Picoworkers.com। এখানে আপনি এমন গেম ইনস্টল রিলেটেড অনেক কাজ পেয়ে যাবেন। এসব সাইটে একটি গেমের জন্য কমপক্ষে ০.২০ ডলার দেই।

কিছু কথা

অনলাইনে আয় করতে এসে আমরা যখন দেখি এড ক্লিক করে আয়, গেম খেলে আয় তখন আমরা ভাবি এগুলোই হয়ত অনলাইন থেকে আয়ের একমাত্র উপায়। আসলে তা না অনলাইন এই জগৎটা অনেক বড়। গেমখেলে নয় আপনি গেম বানিয়ে কোটি টাকা আয় করতে পারবেন এই অনলাইন বিশ্বে। কিন্তু তার আগে আপনার দরকার দক্ষতা। সঠিক দক্ষতা এবং গাইডলাইন পেলে আপনিও অনলাইন থেকে  সফল ভাবে আয় করতে পারবেন।

আর তাই সঠিক গাইডলাইন দেওয়ার জন্য আমরা আছি আপনার পাশে। আমাদের ওয়েবসাইট সম্পূর্ণ ঘুরে দেখুন। অনলাইন থেকে আয়ের নানা আইডিয়া এবং গাইডলাইন পেয়ে যাবেন এখানে।

গেমস খেলে আয় করা অর্থটা আমাদের ধর্মে কতটা বৈধ হবে তা জানি না। আর আজকের এই পোস্টটিতে আমরা শুধু আপনাকে ধারনা দেওয়ার চেষ্টা করেছি এবং কোন ভাবেই গেম খেলে আয় করাকে নিজের প্রফেশন হিসেবে নিতে অনুপ্রেরিত করিনি।

আর দেখতে পারেন: 

গেম খেলে আয় করা নিয়ে কিছু প্রশ্ন এবং উত্তরঃ- 

প্রশ্নঃ- গেম খেলে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট এমন কোন এপ আছে?

উত্তরঃ- থাকলেও থাকতে পারে তবে এসব এপ থেকে আয় করে পেমেন্ট হাতে পাবেন নাকি সন্দেহ আছে।

প্রশ্নঃ- কোন গেম খেলে টাকা আয় করা যায়?

উত্তরঃ-  ClipClaps একটি গেম শেয়ার করেছি। যেখান থেকে গেম খেলে টাকা আয় করা যায়। 

প্রশ্নঃ- এমন কোন এপ আছে যেখানে লুডু গেম খেলে টাকা আয় করা যায়?

উত্তরঃ- এমন কোন এপ এখন পর্যন্ত নেই। কিন্তু যেগুলো ছিল সেগুলো দীর্ঘ সময় ছিল না। এবং এমন এপ গুলো বেশিরভাগই স্প্যাম হয়।

প্রশ্নঃ-বাংলাদেশে কোন গেম খেলে টাকা আয় করা যায়?

উত্তরঃ- না ৷ এমন কোন বিশ্বত্ব উৎস আমরা পাইনি৷

শেষ কথাঃ-

অনলাইন থেকে গেম খেলে কখনো আপনি ভালো অর্থ আয় করতে পারবেন না। তাই নিজেকে কোন একটি বিষয়ে দক্ষ করে তুলুন। নিজের দক্ষতা দিয়ে মানুষকে উপকার করুন। দেখবেন আপনিও সফল হবে। ধন্যবাদ “গেম খেলে টাকা আয় করার উপায়” পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়ার জন্য। 

6 thoughts on “গেম খেলে টাকা আয় করার উপায়”

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!
Scroll to Top
Copy link
Powered by Social Snap