অনলাইনে কোন কাজের চাহিদা বেশি? কোনটি আপনি করবেন?

যারা অনলাইন এ কাজ করতে আগ্রহী বা অনলাইনে ইনকাম করতে চাই তাদের অনেকের ভিতর একটি কমন প্রশ্ন হচ্ছে, অনলাইনে কোন কাজের চাহিদা বেশি?

আজকে আমি অনলাইনে কোন কাজের চাহিদা বেশি, অর্থাৎ অনলাইনে কোন কাজ শিখলে দ্রুত কাজ পাওয়ার পাশাপাশি ভালো পরিমাণ টাকা ইনকাম করা যাবে, এ সম্পর্কিত বিষয়ে আলোচনা করব। কেননা অনলাইনে আয় করতে গেলে সঠিক কাজ নির্বাচন করা অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

অনলাইনে কোন কাজের চাহিদা বেশি
অনলাইনে কোন কাজের চাহিদা বেশি?

অনলাইনে কোন কাজের চাহিদা বেশি?

আমরা এই অনলাইনে কাজের চাহিদার তালিকাটি গুগলে অনুসন্ধান করে বিভিন্ন ওয়েবসাইট ভিজিট করে ও আমার পরিচিত কিছু অনলাইন এক্সপার্ট ভাইদের পরামর্শক্রমে তৈরি করেছি।

আশা করি আপনি এই পোস্টটি থেকে অনলাইনে কাজের চাহিদা সম্পর্কিত পরিপূর্ণ তথ্য জানতে পারবেন। এবং আপনার ভাললাগা অনুযায়ী আপনার অনলাইন ইনকাম করার সঠিক কাজ নির্বাচন করতে পারবেন। তাই এই পোস্টটি শেষ পর্যন্ত পড়ার অনুরোধ রইলো আপনার কাছে।

#১. ওয়েব ডিজাইন এন্ড ডেভেলপমেন্ট

একজন ভাল মানের ওয়েব ডিজাইনার বা ডেভেলপারদের অনলাইন অনেক ভ্যালু রয়েছে। আপনি যদি একজন ভাল মানের ওয়েব ডিজাইনার বা ওয়েব ডেভলপার হতে পারেন তাহলে টাকার পিছনে আপনাকে ছুটতে হবে না!! টাকা আপনার পেছনে ছুটবে।

 ওয়েব ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট কি?

ওয়েব ডিজাইন হচ্ছে, একটা ওয়েবসাইটের বাহ্যিক রূপ দেওয়া মানে সাইটটি দেখতে কেমন হবে সেটা ডিজাইন করা। অর্থাৎ একটা ওয়েবসাইটের লে আউট দেখতে কেমন হবে, ওয়েবসাইটের সাইডবার কোন পাশে থাকবে, সাইডবার কালার কি হবে, হেডারের কোথায় মেনু থাকবে, ওয়েবসাইটের ছবিগুলো কিভাবে উপস্থাপন হবে এরকম কিছু।

ওয়েব ডিজাইনারদের ফ্রন্ট ইন্ড ডেভলপার বলা হয়।

ওয়েব ডেভলপমেন্ট হচ্ছে, একটা ওয়েবসাইট এর ভিতরে কাজ করা মানে ওয়েব সাইটের এডমিন কিভাবে ঢুকবে, ওয়েব সাইটের এডমিন কিভাবে একটা ওয়েবসাইটের সেটিংস পরিবর্তন করবে, অর্থাৎ একটা স্থির ওয়েবসাইটকে ডায়নামিক এ রুপান্তর করা কাজ হচ্ছে ওয়েব ডেভলপারের।

অনলাইন মার্কেটপ্লেসে ওয়েব ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট এর অনেক চাহিদা রয়েছে। অনেকেই হয়তোবা শুনে বিশ্বাস করতে পারবে না যে, বাংলাদেশের অনেকেই ওয়েব ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট শিখে অনলাইন মার্কেটপ্লেসে কাজ করে মাসে ৪ থেকে ৫ লক্ষ টাকার বেশি ইনকাম করতেছে ঘরে বসে।

#২. গ্রাফিক ডিজাইনার

গ্রাফিক ডিজাইনটি আপওয়ার্কের সর্বাধিক কাজের চাহিদা অনুযায়ী তালিকায় ২ নম্বরে রয়েছে।

গ্রাফিক্স ডিজাইন হল এমনি একটি সদৃশ মাধ্যম যার দ্বারা কোন পৃষ্ঠের উপরে (যেমন, একটি ক্যানভাসের উপর, একটি পর্দার উপর, একটি কাগজের উপর, কিংবা একটি ওয়ালের উপর) ছবি বা নকশা আঁকাকে বুঝায়।  যা একটি নির্দিষ্ট অর্থ প্রকাশ করে চিত্রের মাধ্যমে বা স্বচিত্রক ভাব প্রকাশ করে ।

অনলাইন মার্কেটপ্লেসে গ্রাফিক ডিজাইনে ক্যাটাগরিতে প্রতি ঘণ্টায় হাজার হাজার জব পোস্ট হয়। অনলাইনে গ্রাফিক ডিজাইনের ব্যবহার অনেক বেশি হয় হওয়ায় অনলাইনে এই কাজের পরিমানও অনেক। তাই এটি অনলাইন ইনকামের জনপ্রিয় মাধ্যমে পরিণত হয়েছে।

আপনি যদি গ্রাফিক ডিজাইনার ফ্রিল্যান্সার ক্যাটাগরিতে শীর্ষ গ্রাফিক ডিজাইনারদের দেখেন তাহলে আপনি দেখতে পাবেন, তারা প্রতি ঘন্টায় $85 ডলারে কাজ করে।

অবশ্যই পড়ুন: 

#৩. সফটওয়্যার ডেভলপমেন্ট

অন্য সফটওয়্যার পরিচালনা করা বাস্তব জীবনের সমস্যার সমাধান করার সফটওয়্যার তৈরি করাবে সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্টে বলে। যে ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান সফটওয়্যার তৈরি করে তাকে সফটওয়্যার ডেভলপার বলা হয়।

একটা সফটওয়্যার থেকে অনেক দীর্ঘ সময় আয় করা সম্ভব। সফটওয়্যার ডেভলপার আরা মার্কেটপ্লেসে কাজ করার পাশাপাশি তারা সফটওয়্যার তৈরি করে বিভিন্ন ওয়েবসাইটে বিক্রি করতে পারে।

ফ্রিল্যান্সিংয়ে ক্যারিয়ার গড়ার জন্য গুগলে লোভনীয় চাকরি ছেড়ে আসা একজন প্রোগ্রামার মিট জেমস নাইট এখন ফ্রিল্যান্সিং সফটওয়্যার ডেভলপার কাজ করে করে ঘন্টায় $ 1000 ডলার ইনকাম করেন।

#৪. কনটেন্ট রাইটিং

কনটেন্ট রাইটিং মূলত হচ্ছে ওয়েবসাইটের পোস্ট লেখা। অনলাইন মার্কেটপ্লেসে কনটেন্ট রাইটিং এর প্রচুর কাজ পাওয়া যায়। কনটেন্ট রাইটাররা অনলাইন মার্কেটপ্লেসে কাজ করার পাশাপাশি ওয়েবসাইট তৈরি করে বিভিন্ন মাধ্যমে আয় করতে পারে।

একজন ভাল মানের কনটেন্ট রাইটার অনলাইন মার্কেটপ্লেসে অনেক টাকা ইনকাম করতে পারে প্রতি ঘন্টায়। উদাহরণস্বরূপ বলি লিন্ডা ফর্মিকেলি, একজন অভিজ্ঞ ফ্রিল্যান্স কনটেন্ট রাইটার, তিনি প্রতি ঘন্টায় $২৫০ উপার্জন করেন।

#৫. এসইও এক্সপার্ট

একজন এসইও এক্সপার্ট যে অনলাইন থেকে কত ভাবে ইনকাম করতে পারে তা বলে শেষ করা যাবেনা। যেহেতু একজন এক্সপার্ট হতে অনেক ধৈর্য্য ধরে দীর্ঘ সময় কাজ করতে হয়, তাই একজন এসইও এক্সপার্টের দাম অনলাইনে অনেক বেশি অন্যান্য কাজে তুলনায়। আর হবেই না বা কেন কারন এটা অন্যান্য অনলাইন কাজের চাইতে অনেক চ্যালেঞ্জিং।

আপনি যদি আপওয়ার্কে টপ এসইও এক্সপার্ট এর প্রোফাইল দেখেন তাহলে আপনি দেখতে পাবেন তাদের ঘন্টায় কাজ করা রেট হচ্ছে $100 ডলারের উপরে।

আপনি যদি একজন এসইও এক্সপার্ট হতে পারেন তাহলে আপনি মার্কেটপ্লেসে কাজ করার পাশাপাশি নিজে ওয়েবসাইট তৈরি করে ভালো পরিমাণ আয় করতে পারবেন।

#৬. ভিডিও এডিটর

বর্তমান সময়ে অনলাইন মার্কেটপ্লেসে ভিডিও এডিটিং এর উপরে অনেক অনলাইন কাজ পাওয়া যায়। আর এর চাহিদা দিন দিন বেড়েই যাচ্ছে।

বর্তমান সময়ে ভিডিও এডিটিং এর কাজ করে অনলাইন মার্কেটপ্লেসে ভালো পরিমাণ ইনকাম করা সম্ভব। অনেকেই ভিডিও এডিটিং এর কাজ দ্বারা অনলাইন মার্কেটপ্লেস থেকে প্রত্যেক মাসে ২-৩ লহ্ম টাকা তারও বেশি ইনকাম করতেছে।

যদি উদাহরণস্বরূপ বলি, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ফ্রিল্যান্স অভিজ্ঞ ভিডিও ইডিটররা প্রতি বছর প্রায় $122,000 ডলার আয় করেন।

আর দেখুন: 

#৭. ভার্চুয়াল অ্যাসিস্ট্যান্ট

ভার্চুয়াল অ্যাসিস্ট্যান্ট হল কাউকে বা কোন টিমকে কোন কাজ করতে সহযোগিতা করা। অনলাইনে ভার্চুয়াল অ্যাসিস্ট্যান্ট এর চাহিদা দিন দিন বেড়েই চলেছে। ইউ এস এর অনেক ভার্চুয়াল অ্যাসিস্ট্যান্ট নভেম্বর মাসে প্রায় $22 হাজার ডলার ইনকাম করেছে।

অডেক্স এর রিপোর্ট অনুযায়ী, গত দুই বছরের মধ্যে ভার্চুয়াল অ্যাসিস্ট্যান্ট এর সংখ্যা আগের তুলনায় কয়েকগুন বৃদ্ধি পেয়েছে।

#৮. ট্রান্সলেটর/অনুবাদ

অনলাইন মার্কেটপ্লেসে ট্রান্সলেটর ক্যাটাগরিতে হাজার হাজার জব পোস্ট হয়। ট্রান্সলেট কাজটি হলো এক ভাষা থেকে অন্য ভাষায় কোন ডকুমেন্ট বা ভিডিও কে রূপান্তর করা।

ট্রান্সলেট বা অনুবাদটা কাজটি করতে হলে আপনাকে অন্য ভাষা জানতে হবে। যেমন ক্লায়েন্ট আপনাকে দেবে একটি বাংলা ভাষার ডকুমেন্ট সেটিকে একটি নির্দিষ্ট সময়ের ভেতরে যে ভাষায় ক্লায়েন্ট আপনাকে অনুবাদ করতে বলবে সে ভাষায় অনুবাদ করে নির্দিষ্ট সময়ের ভেতরে তার কাছে জমা দিতে হবে।

এই সহজ কাজটির মূল্য বুঝতে আপনি আপওয়ার্কে বেস্ট ট্রান্সলেটর ফ্রিল্যান্সারদের প্রোফাইল দেখতে পারেন। আপওয়ার্কে নভেম্বর মাসে বেস্ট ট্রান্সলেটর ফ্রিল্যান্সারদের প্রতি ঘন্টায় কাজের রেট ছিল $40 ডলারের উপরে। এটা থেকে কিছুটা অনুমান করা যায় একজন ভালমানের অনুবাদক এর মূল্য কত।

শেষ কথা,

আমরা অনলাইনে কোন কাজের চাহিদা বেশি পোস্ট এর ভেতরে যে কাজগুলি উল্লেখ করেছি শুধু যে সে কাজগুলো করে ভালো পরিমাণ অর্থ ইনকাম করা সম্ভব অনলাইন থেকে এই ধারণাটা করা ঠিক নয়।

তবে বর্তমান সময়ে এই পোস্টে উল্লেখিত কাজগুলো চাহিদা অনলাইনে বেশি। অর্থাৎ এই কাজগুলো ভালোভাবে শিখতে পারলে ফ্রীল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে অন্যান্য কাজের তুলনায় দ্রুত সফল হওয়া সম্ভব।

অনলাইনে আরো অনেক কাজ রয়েছে যদি আপনি সেগুলোও ভালোভাবে শিখতে পারেন সেই কাজগুলো থেকেও ভালো পরিমান অনলাইন হতে ইনকাম করা সম্ভব।

যেকোনো কাজে এভারেজ হওয়ার চিন্তা বাদ দিয়ে এক্সপার্ট হওয়ার চিন্তা করতে হবে। তাহলে আপনার মূল্যটা বেশী থাকবে। অর্থাৎ আপনি বেশি ইনকাম করতে পারবেন।

আর আপনার যদি অনলাইনে কোন কাজের মূল্য বেশি পোস্টের তালিকা সম্পর্কিত কোন সাজেশন বা অভিযোগ থাকে তাহলে কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করে জানান। আর আপনি কোন মাধ্যমটি ব্যবহার করতে চান অনলাইনে ইনকাম করতে সেটাও আমাদের কমেন্ট করে জানান।

2 thoughts on “অনলাইনে কোন কাজের চাহিদা বেশি? কোনটি আপনি করবেন?”

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!
Scroll to Top
Copy link
Powered by Social Snap